ডুবে গিয়েও ২০ ঘণ্টা বাবাকে জড়িয়ে ধরেছিল মেয়ে

পদ্মায় নৌকাডুবি

ডুবে গিয়েও ২০ ঘণ্টা বাবাকে জড়িয়ে ধরেছিল মেয়ে

রাজশাহী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১২:২১ ৮ মার্চ ২০২০  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

বৌভাতের অনুষ্ঠানে মেয়ে রোশনিকে নিয়েই গিয়েছিলেন শামীম হোসেন। সবাই নৌকায় করেই ফিরছিলেন। মধ্যপদ্মায় দুর্ঘটনার কবলে পড়ে ডুবে যায় পাশপাশি চলা দুটি নৌকা। ডুবে গেলেও আদরের মেয়েকে ছাড়েননি শামীম। ঘটনার প্রায় ২০ ঘণ্টা পর শনিবার বিকেল ৫টায় দুর্ঘটনাস্থলের কিছুটা দূরে আঁকড়ে ধরা বাবা-মেয়ের মরদেহের সন্ধান মেলে।

উদ্ধারকারী জেলেদের জালে আটকা পড়ে শামীম ও তার মেয়ে রোশনি। উদ্ধারের সময় দেখা যায়, মেয়েকে আঁকড়ে ধরে ছিলেন শামীম। এমনকি বাবার হাত ফঁসকেও যায়নি মেয়ে।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার রাজশাহীর পবা উপজেলার ডাঙ্গেরহাট গ্রামের শাহীন আলীর মেয়ে সুইটি খাতুন পূর্ণিমার সঙ্গে পদ্মার ওপারের চরখিদিরপুরের বাসিন্দা ইনছার আলীর ছেলে আসাদুজ্জামান রুমনের বিয়ে হয়। বউভাতের অনুষ্ঠান শেষে গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় বরের বাড়ি থেকে দুটি নৌকাযোগে বর-কনেসহ প্রায় ৩৬ জন যাত্রী ফিরছিলেন কনের বাড়িতে।

মহানগরীর শ্রীরামপুর এলাকার বিপরীতে মধ্যপদ্মায় বর ও কনেকে বহনকারী নৌকাটি ডুবে যায়। এ সময় ডুবে যাওয়ার নৌকার যাত্রী আতঙ্কে অন্য নৌকাতে লাফিয়ে উঠতে থাকায় ডুবে যায় অপর নৌকাটিও। এ সময় বালুবাহী ট্রলারের সহায়তায় বরসহ ১৪ জন প্রাণে বেঁচে যান। পরে রাতে আরও বেশ কয়েকজনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস