ট্রলারডুবিতে এতো শিক্ষার্থীর মৃত্যু আগে কখনো দেখেনি দেশ

ট্রলারডুবিতে এতো শিক্ষার্থীর মৃত্যু আগে কখনো দেখেনি দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:৪১ ৫ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১৬:৩৭ ১৯ আগস্ট ২০২০

ছবি- সংগৃহীত

ছবি- সংগৃহীত

নেত্রকোনার মদন উপজেলায় পর্যটন কেন্দ্র মিনি কক্সবাজার নামে খ্যাত উচিতপুরের হাওরে ঘুরতে এসে ট্রলারডুবিতে ১৭ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। জানা গেছে, নিহতরা সবাই মাদ্রাসার শিক্ষার্থী। দেশে এর আগে কখনো ট্রলারডুবিতে এতো শিক্ষার্থী মারা যায়নি।

বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় উচিতপুরের সামনের হাওর গোবিন্দশ্রী রাজালী কান্দা নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে।

মদন উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বুলবুল আহমেদ জানান, ময়মনসিংহের কয়েকটি মাদ্রাসা থেকে কিছু শিক্ষক ও শিক্ষার্থী এই এলাকায় হাওরে বেড়াতে আসেন। তাদের নৌকায় ৪৮ জন যাত্রী ছিলেন।

তিনি জানান, বুধবার দুপুর সাড়ে ১১টা থেকে ১২টার দিকে তাদের নৌকাটি ডুবে যায়। এখন পর্যন্ত আমরা ১৭ জনের মরদেহ ও ৩০ জনকে জীবিত উদ্ধার করতে পেরেছি। একজন এখনো নিখোঁজ রয়েছে। নিহতরা সবাই ময়মনসিংহের কয়েকটি মাদ্রাসার শিক্ষার্থী বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে।

ট্রলারডুবিতে ১৭ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়

ট্রলারটি ডুবে যাওয়ার কারণ সম্পর্কে নিশ্চিতভাবে বলতে না পারলেও বুলবুল আহমেদ আশঙ্কা প্রকাশ করেন এই মৌসুমে হাওরের আবহাওয়া হঠাৎ উত্তাল হয়ে যাওয়ার কারণেই দুর্ঘটনাটি ঘটে থাকতে পারে।

তিনি বলেন, এই মৌসুমে হাওরে হঠাৎ বড় বড় ঢেউ তৈরি হয় আবার কিছুক্ষণের মধ্যে শান্ত হয়ে যায়। সেরকম কোনো একটি সময়ে হয়তো নৌকাটি ডুবে যায়।

স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে পুলিশ এবং ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা নিখোঁজদের উদ্ধারকাজে নিয়োজিত আছেন।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বুধবার সকালে ময়মনসিংহ সদর থানার ৫ নম্বর চরশিরতা ইউপি ও আটপাড়া তেলিগাতী থেকে ৪৮ জন ঘুরতে মিনি কক্সবাজার উচিতপুরে আসেন। পরে ঘুরতে গেলে হাওরের উত্তাল ঢেউয়ে গোবিন্দশ্রী রাজালীকান্দা নামক স্থানে ট্রলারটি ডুবে যায়। এতে ১৭ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

দুর্ঘটনা ও হতাহতদের বিষয়ে নিশ্চিত করেছেন মদন থানার ওসি রমিজুল হক। তিনি বলেন, এখনো উদ্ধার কাজ চলছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিআরএইচ