Alexa ‘টেঁটা হাতে দেখলেই গ্রেফতার’

‘টেঁটা হাতে দেখলেই গ্রেফতার’

নরসিংদী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৯:৪২ ৯ ডিসেম্বর ২০১৯  

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

টেঁটা প্রদর্শন বা হাতে দেখলেই গ্রেফতার করা হবে। পৈশাচিক উপায়ে মানুষকে হত্যা বা আহত করা থেকে বিরত রাখতে এ ঘোষণা দিয়েছেন নরসিংদীর এসপি প্রলয় কুমার জোয়ারদার।

সোমবার সন্ধ্যায় নরসিংদীর চরাঞ্চলে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ ঘোষণা দেন।

এসপি বলেন, এক সময় এই টেঁটা দিয়ে মাছ ধরা হতো। এখন মানুষ হত্যা করা হয়। টেঁটা যুদ্ধা বা টেঁটা দিয়ে মানুষকে আঘাত করার দৃশ্যটা কতটা অমানবিক তা প্রতক্ষ্য না করলে বোঝার কোনো উপায় নেই। 

তিনি আরো বলেন, আমরা আধুনিক যুগে বসবাস করছি। আমারদের চরাঞ্চলে শিক্ষার হার বেড়েছে। অর্থনৈতিক মুক্তি হয়েছে। তবে কেন হানাহানি?

সকালে সদর উপজেলার নজরপুর ইউপির আলীপুরা গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ১০ জন আহত হন। 

আহতদের মধ্যে দুইজনকে ঢাকা মেডিকেলে ও বাকিদের নরসিংদী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

এ ঘটনায় পুলিশ ১৩ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে। 

নরসিংদী সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহতরা হলো গহর আলী, মিছির আলী, কাউছার, মেহেদী ও অহর উদ্দিন। অজ্ঞাতনামা আরো তিনজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়।

এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে নজরপুর ইউপির আলীপুরা গ্রামের বাসিন্দা শাহজাহান মিয়া ও একই গ্রামের কামাল মিয়ার মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে সকালে দুই পক্ষের লোকজন টেঁটাসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে টেটাঁবিদ্ধ হয়ে উভয় পক্ষের ১০ জন আহত হয়। 


 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ