টাকা চাইতে গিয়ে লাশ হলেন পাওনাদার

টাকা চাইতে গিয়ে লাশ হলেন পাওনাদার

শাহজাদপুর(সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২১:০৭ ২৪ মে ২০২০  

নিহত নাজিম উদ্দিনের স্বজনদের আহাজারি (ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ)

নিহত নাজিম উদ্দিনের স্বজনদের আহাজারি (ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ)

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার নরিনা ইউপির কাংলাকান্দি গ্রাম থেকে রোববার সকালে নাজিম উদ্দিন নামে এক কৃষকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তিনি ওই গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে। 

এ ঘটনায় নিহতর পরিবারের দাবি, তাকে মারধর করে হত্যা করা হয়েছে।

অপরদিকে প্রতিপক্ষের লোকজন তাদের এ দাবি অস্বীকার করে বলেছেন, পাওনা টাকা চাইতে যাওয়ার পথে তারা নিজেরাই নাজিম উদ্দিনকে হত্যার পর আমাদের নামে মিথ্যা হত্যা মামলা দেয়ার চেষ্টা করছে।

এ বিষয়ে নিহতর স্ত্রী নূরজাহান বলেন, এদিন ভোরে তিনি ও তার স্বামী নাজিম উদ্দিন সরিষা বিক্রির পাওনা টাকা চাইতে নারায়ণদহ যাওয়ার সময় মৃত সাইদুল ইসলামের বাড়ির সামনে পৌঁছালে পূর্ব বিরোধের জের ধরে ওই বাড়ির ভিতর থেকে তার মেয়ে জামাই আব্দুর রউফ গং তাদের উপর হামলা চালায়। পরে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার পথে মৃত্যু হয়।  

নিহতর ছেলে হাবিবুর রহমান মিন্টু ও মেয়ে নাসিমা খাতুন অভিযোগ করে বলেন, কিছুদিন আগে আব্দুর রউফের বাড়ির কাছের একটি ব্রিজের ওপর আমাদের কয়েকজন কিশোর বসে ছিল। এ সময় আব্দুর রউফ গং তাদের বেধরক মারধর করে আহত করেন। এ নিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে কয়েক দফা হামলা সংঘর্ঘের ঘটনায় থানায় দুইপক্ষের একাধিক মামলা হয়েছে। এরই জের ধরে ওইদিন ভোরে আমার বাবা-মা পাওনা টাকা আনতে যাওয়ার সময় তারা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়।

তাদের এ অভিযোগ অস্বীকার করে আব্দুর রউফ বলেন, গ্রামে আধিপত্য বিস্তার ও তাদের কয়েকজন ছেলে আমার বাড়ির সামনের ব্রিজে বসে বখাটেপনা ও মেয়েদের উত্যক্ত করছিল। এর প্রতিবাদ করায় আমাদের বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও লুটপাট করেন। এতে বাধা দিলে তারা আমাদের লোকজনকে মারধর করে গুরুতর আহত করেন। এ ঘটনায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। এ মামলায় হেরে আশঙ্কায় তারা নিজেরাই নাটক সাজিয়ে কৃষক নাজিম উদ্দিনকে হত্যার পর আমাদের ফাঁসানোর জন্য মিথ্যা মামলা দায়েরের চেষ্টা করছে। সঠিক ও নিরপেক্ষ তদন্ত হলে আসল সত্য বেরিয়ে আসবে।

এ বিষয়ে শাহজাদপুর থানার ওসি আতাউর রহমান জানান, নিহতর শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন নেই। তাই ময়নাতদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে বিস্তারিত জানা যাবে।

তিনি আরো বলেন, এ ঘটনায় শাহজাদপুর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম