জোড়া শতকে ৪০০ পেরোলো টাইগাররা

জোড়া শতকে ৪০০ পেরোলো টাইগাররা

স্পোর্টস ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৩:২৪ ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১৩:৫১ ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০

মুশফিকুর রহিম

মুশফিকুর রহিম

সফরকারী জিম্বাবুয়েকে চেপে ধরেছে বাংলাদেশ। সিরিজের একমাত্র টেস্টে নিজেদের প্রথম ইনিংসে মুমিনুল-মুশফিকের শতকে রানের পাহাড় গড়ছে টাইগাররা। এরইমধ্যে দলীয় রান ৪০০ পেরিয়ে গেছে। শতক হাঁকিয়ে মুমিনুল হক বিদায় নিলেও রানবন্যা অব্যাহত রেখেছেন মি. ডিপেন্ডেবল মুশফিকুর রহিম। 

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ১১৩ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৪ উইকেটে ৪০০ রান। এরইমধ্যে ১৩৫ রানের লিড নিয়েছে টাইগারররা। ২০৩ বলে ১২৮ রানে ব্যাট করছেন মুশফিক। অপরপ্রান্তে ৬ বলে ৫ রানে অপরাজিত আছেন মোহাম্মদ মিথুন। 

ব্যক্তিগত ৫৫ রান নিয়ে মুমিনুল ও মুশফিক ২০ রানে অপরাজিত থেকে তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করেন। শুরু থেকেই দেখে খেলতে থাকেন মুমিনুল। ১৫৬ বলে ক্যারিয়ারের নবম সেঞ্চুরি তুলে নেন তিনি। তার ইনিংসে ছিল ১২টি চারের মার।

সেঞ্চুরিটি মুমিনুলের জন্য বড় একটি চাপ কমিয়ে দিয়েছে বললেও অত্যুক্তি হবে না। কারণ টাইগারদের অধিনায়কত্বের ভার নেয়ার পর থেকেই হাসছিলো না তার ব্যাট। এমনকি শেষ কয়েকটি ইনিংসে কোনো ফিফটির দেখাও পাননি তিনি। সেখান থেকে এমন সেঞ্চুরি নিঃসন্দেহে আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দেবে।

জিম্বাবুয়ের প্রথম ইনিংস থেকে ২৫ রানে পিছিয়ে থেকে এদিন মাঠে নামে টাইগাররা। তবে আধঘণ্টা না যেতেই জিম্বাবুয়ের স্কোর ছাড়িয়ে লিড নেয় বাংলাদেশ। ৩ উইকেটে ৩৫১ রান নিয়ে মধ্যাহ্ন বিরতিতে যায় টাইগাররা। 

মধ্যাহ্ন বিরতির পরপরই টেস্ট ক্যারিয়ারের সপ্তম শতক তুলে নেন মি. ডিপেন্ডেবল। মাত্র ১ রানের জন্য শতকের অপেক্ষা নিয়ে লাঞ্চে গিয়েছিলেন মুশফিক। বিরতি থেকে ফিরে তিন অংকের ম্যাজিক ফিগারে পৌঁছাতে সময় নেন মাত্র ৭ বল। এন্দোলভুর বলে লং অন দারুন এক বাউন্ডারির মেরে শতক পূর্ণ করেন মুশফিক। 

মুশফিক-মুমিনুলের ব্যাটে দুর্দান্ত গতিতে এগিয়ে যেতে থাকে বাংলাদেশের রান। নিজেদের ইতিহাসে চতুর্থ ‍উইকেট জুটিতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২২২ রান তুলে বিচ্ছিন্ন হন তারা। দলীয় ৩৯৪ রানের মাথায় এন্দোলভুর বলে ফিরতি ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন অধিনায়ক ‍মুমিনুল। ২৩৪ বলে ১৩২ রান করেন তিনি। 

এরপর নতুন ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ মিথুনকে সঙ্গে নিয়ে বড় সংগ্রহের দিকে এগিয়ে চলেছেন মুশফিক। তাদের ব্যাটে বিশাল সংগ্রহের দিকে ধাবিত হচ্ছে বাংলাদেশ। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এম/এমআরকে