Alexa জুতার মালা পরিয়ে শিক্ষা অফিসারকে লাঞ্চিত, ৪ শিক্ষকের দণ্ড

জুতার মালা পরিয়ে শিক্ষা অফিসারকে লাঞ্চিত, ৪ শিক্ষকের দণ্ড

পিরোজপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৮:৫৮ ১৩ নভেম্বর ২০১৯   আপডেট: ২১:৪৯ ১৩ নভেম্বর ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

পিরোজপুরে এক শিক্ষা অফিসারকে জুতার মালা গলায় দিয়ে লাঞ্চিত করার দায়ে চার শিক্ষককে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছে আদালত। 

বুধবার দুপুরের দিকে পিরোজপুর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. মেহেদী হাসানের আদালত এ রায় ঘোষণা করে। দণ্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে উজ্জল হাওলাদারকে এক বছর এবং অপর তিনজনের প্রত্যেককে ছয় মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়। 

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- কাউকালী সদরের দক্ষিণ বাজার এলাকার মোফাজ্জেল হোসেনের ছেলে মো. উজ্জল মিঞা, মধ্যবাজার কাপড়িয়া পট্টি এলাকার সুখরঞ্জন হালদারের ছেলে বাদল চন্দ্র হালদার ও শ্যামল চন্দ্র হালদার ও ঝালকাঠী জেলা রাজাপুর থানার সাতুরিয়া গ্রামের মোসলেম আলী খানের ছেলে আব্দুল জলিল খান।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, কাউখালী উপজেলার চার প্রাথমিক শিক্ষকের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগে উপজেলা পরিষদের সভায় রেজুলেশন হয়। এ ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষকরা ক্ষিপ্ত হয়ে ঘটনার দিন ৩ সেপ্টেম্বর রোববার সকাল ১০টার দিকে অফিসের মধ্যে ঢুকে পড়ে সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার (অতিরিক্ত দায়িত্বে নিয়োজিত উপজেলা শিক্ষা অফিসার) আমিনুল ইসলামকে গালাগালি করে।

এ সময় দণ্ডপ্রাপ্ত মামলার আসামিরা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের গলায় জুতার মালা পরিয়ে লাঞ্চিত করেন। এ ঘটনার পর কাউখালী থেকে বদলি হয়ে পিরোজপুর সদরে যোগদান করেন। পরে পিরোজপুর জুডিশিয়াল আদালতে মামলা করেন আমিনুল ইসলাম।

বাদীপক্ষে অ্যাডভোকেট আনোয়ার হোসেন তালুকদার স্বপন ও আসামিপক্ষে অ্যাডভোকেট শাহ আলম মামলা পরিচালনা করেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম