Alexa জীবিত শিশুকে মাটিচাপা দিলেন মা, অতঃপর...

জীবিত শিশুকে মাটিচাপা দিলেন মা, অতঃপর...

দেবহাটা (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০৩:৪৭ ২১ জানুয়ারি ২০২০  

ভুক্তভোগী ফাহিম

ভুক্তভোগী ফাহিম

সাতক্ষীরার দেবহাটায় মায়ের বিরুদ্ধে দুই বছরের শিশুকে মাটিচাপা দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। তবে ঘটনাটি দেখে শিশুটিকে উদ্ধার করেন এক প্রতিবেশী।

রোববার দুপুরে উপজেলার পুষ্পকাটি এলাকায় এমন ঘটনা ঘটেছে। অভিযুক্ত মা শামীমা আক্তার বন্যা ওই এলাকার ইব্রাহিম হোসেনের মেয়ে। তিনি উপজেলার কালিন্দি ছয়ঘরিয়া গ্রামের আব্দুল হাইয়ের ছেলে আর্মড পুলিশের সদস্য শিবলুর স্ত্রী।

প্রতিবেশী শাহিনুর রহমান বলেন, কয়েক বছর আগে শামীমা আক্তার বন্যার সঙ্গে শিবলুর বিয়ে হয়। বিয়ের আগে উপজেলার দক্ষিণ আলীপুর গ্রামের খবির উদ্দীনের ছেলে সুজন হোসেনের সঙ্গে শামীমার প্রেম ছিল। এই খবর জেনে স্বামী ও তার পরিবারের সঙ্গে মনোমালিন্য শুরু হয়। এরইমধ্যে তাদের ঘরে জন্ম নেয় ফাহিম নামের শিশু। মনোমালিন্যের জেরে শিশুকে নিয়ে বাবার বাড়ি চলে আসেন শামীমা। এরপর থেকে স্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করেন স্বামী শিবলু।

স্থানীয়রা জানান, শামীমার মায়ের সঙ্গে কুলিয়ার হামজা মেশিনারিজের মালিক আলী হামজার পরকীয়া সম্পর্ক রয়েছে। এ নিয়ে বাবার বাড়িতে অশান্তিতে ছিলেন শামীমা। এ নিয়ে সম্মান বাঁচাতে শামীমার বাবা ইব্রাহিম কর্মসংস্থানের খোঁজে বিদেশে চলে যান। কিন্তু মায়ের পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় প্রতিনিয়ত নির্যাতনের শিকার হন তিনি। শ্বশুর বাড়ির লোকজনের অবহেলা ও নিজের মায়ের বেপরোয়া চলাফেরায় শামীমা হতাশাগ্রস্ত হন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে নিজের ছেলেকে রোববার দুপুরে বাড়ির আঙিনায় মাটিচাপা দেন। তবে প্রতিবেশী লিয়াকতের স্ত্রী ঘটনাটি দেখতে পেয়ে শিশুকে উদ্ধার করেন।

দেবহাটা থানার ওসি বিপ্লব কুমারা সাহা বলেন, শিশুকে মাটিচাপা দেয়ার ঘটনাটি থানায় কেউ অবগত করেনি। খোঁজ নিতে ওই বাড়িতে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ