Alexa জীবাণু অস্ত্র তৈরির গোপন ল্যাব থেকে ছড়িয়েছে করোনাভাইরাস!

জীবাণু অস্ত্র তৈরির গোপন ল্যাব থেকে ছড়িয়েছে করোনাভাইরাস!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৮:৪৪ ২৭ জানুয়ারি ২০২০  

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

চীনের প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস ছড়িয়েছে দেশটির জৈব রাসায়নিক অস্ত্র কর্মসূচির ল্যাব থেকে, এমনটা দাবি করেছেন ইসরায়েলের একজন সামরিক গবেষক।

ওয়াশিংটন টাইমস জানায়, ড্যানি শোহাম নামে ওই গবেষক ইসরায়েলের সামরিক গোয়েন্দাবাহিনীর একজন সাবেক কর্মকর্তা। চীনের জৈব রাসায়নিক মারণাস্ত্র কর্মসূচি নিয়ে গবেষণা করেছেন তিনি। 

ড্যানি শোহামের দাবি, জৈব রাসায়নিক অস্ত্র তৈরির গোপন কর্মসূচি চলা একটি ইনস্টিটিউট থেকে প্রাণীবাহী করোনাভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়েছে।

তিনি জানান, করনোভাইরাসগুলো নিয়ে গবেষণা করা হয় ইনস্টিটিউটটিতে। সার্সধর্মী ভাইরাস নিয়ে গবেষণাও চীনের জৈব রাসায়নিক অস্ত্র কর্মসূচির অন্তর্ভুক্ত। বড় আকারের এই কর্মসূচি বেশ কয়েকটি ধাপে পরিচালনা করা হয়।

মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বব্যাপী জীবাণু ও রাসায়নিক অস্ত্র নিয়ে ইসরায়েলের কর্মসূচির উচ্চপদস্থ বিশেষজ্ঞ ছিলেন লেফটেন্যান্ট কর্নেল পদমর্যাদার ড্যানি শোহাম।

এদিকে রেডিও ফ্রি এশিয়া গত সপ্তাহে তাদের পুরোনো একটি প্রতিবেদন আবার সামনে এনেছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে, ভাইরাস নিয়ে চীনের সবচেয়ে উন্নত প্রযুক্তির গবেষণাগারটি হচ্ছে উহান ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজি। প্রতিষ্ঠানটিতে মরণঘাতী ভাইরাস নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও গবেষণা চালানো হয় বলে এরইমধ্যে স্বীকার করেছে চীন।

ওয়াশিংটন টাইমসকে ড্যানি শোহাম আরো বলেন, ‘ইবোলা, নিপা  এবং ক্রিমিয়ান-কঙ্গো হেমোরজিক ফিভার ভাইরাস নিয়ে গবেষণায় জড়িত ছিল উহান ইনস্টিটিউটের ন্যাশনাল বায়োসেফটি ল্যাবটি। ইনস্টিটিউটটি চাইনিজ একাডেমি অব সায়েন্সের অধীনে হলেও সামরিক কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে জৈব রাসায়নিক অস্ত্র কর্মসূচির সঙ্গে জড়িত।’

 বিতর্কিত জৈব অস্ত্র কর্মসূচি পরিচালনার বিষয়টি অস্বীকার করে আসছে চীন। তবে গত বছর দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একটি প্রতিবেদনে এই ধরনের একটি কর্মসূচি নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করে আন্তর্জাতিক মহল।

এদিকে জৈব রাসায়নিক অস্ত্র কর্মসূচি থেকে নতুন করোনাভাইরাসটির উৎপত্তি প্রসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের চীনা দূতাবাসের কাছে মেইল পাঠানো হলে কোনো ধরনের প্রতিক্রিয়া মেলেনি বলে মার্কিন সংবাদমাধ্যমটি জানায়।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএইচ