জামালপুরে নিখোঁজের ছয় দিন পর যুবকের মরদেহ উদ্ধার

জামালপুরে নিখোঁজের ছয় দিন পর যুবকের মরদেহ উদ্ধার

জামালপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৩:৪২ ১ জুলাই ২০২০  

ছয় দিন পর মাটিতে পুঁতে রাখা অপুর মরদেহ উদ্ধার

ছয় দিন পর মাটিতে পুঁতে রাখা অপুর মরদেহ উদ্ধার

জামালপুরে নিখোঁজের ছয় দিন পর মাটিতে পুঁতে রাখা অপু নামে এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।  

মঙ্গলবার রাতে জেলা সদরের নাওভাঙা চর থেকে ওই যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। অপু হত্যা মামলার প্রধান আসামি আল আমিনের বাড়ির আঙ্গিনায় পুঁতে রাখা ছিল অপুর মরদেহ।

নিহত অপু জেলা সদরের নাওভাঙা চর বাঁধের মাথা ছাতার মোড় এলাকার রিকশা চালক সুরুজ আলীর ছেলে। 

অপু মাহেন্দ্র গাড়ির চালক ছিলেন। গত বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে নাওভাঙা চরের মধ্যপাড়া আদর্শ বয়েজ ক্লাবে যান অপু। এরপর তিনি আর বাড়িতে ফিরেননি। এরপর অপু নিখোঁজের ঘটনায় জামালপুর থানায় সাধারণ ডায়েরি এবং মামলা দায়ের করেন তার বাবা সুরুজ আলী।  

মামলার প্রধান আসামি নাওভাঙা চর এলাকার আল আমিনকে মঙ্গলবার দুপুরে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তার স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে অপুর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

জামালপুর সদর থানার ওসি সালেমুজ্জামান গণমাধ্যমকে জানান, গ্রেফতার আল আমিন প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে অপুকে হত্যা করে মরদেহ তার বাড়ির আঙ্গিনায় মাটি চাপা দিয়েছেন বলে স্বীকার করেছেন।

নাওভাঙ্গা চরের সুরুজ আলীর ছেলে অপু গত ২৫ জুন রাত ৯টার দিকে স্থানীয় একটি সমিতির টাকা সংগ্রহ করে বাড়ি ফেরার সময় নিখোঁজ হন। পরদিন গ্রামের একটি পাট ক্ষেতে একটি জুতা, ধস্তাধস্তি ও রক্তের চিহ্ন পাওয়া যায়। 

পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে আলামত সংগ্রহ করেছে। এছাড়া সন্দেহবশত গ্রামের একটি খালে অপুকে খোঁজাখুঁজি করা হলেও তার কোনো সন্ধান মেলেনি। পরে আল আমিনের বাড়ির আঙ্গিনার মাটি খুঁড়ে অপুর ক্ষত-বিক্ষত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহতের বাবা সুরুজ আলী বলেন, ছেলেকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।
 

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে