Alexa জমি নিয়ে বিরোধ: বাবা-ছেলের পাল্টাপাল্টি মামলা

জমি নিয়ে বিরোধ: বাবা-ছেলের পাল্টাপাল্টি মামলা

শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:২৪ ১৬ নভেম্বর ২০১৯  

আহত ফেরদৌস

আহত ফেরদৌস

বাগেরহাটের শরণখোলায় বাবার ষড়যন্ত্রের কারণে মাথা গোঁজার ঠাঁই হারাতে বসেছেন দিনমজুর ফেরদৌস ও আবু নাঈম নামে দুই ভাই।

উপজেলার ধানসাগর ইউপির খেজুরবাডিয়া গ্রামের বাসিন্দা আবু সাইয়েদ হাওলাদারের প্রথম স্ত্রী ফরিদা বেগম দুই ছেলে রেখে ১৯৯৯ সালে মারা যান। পরে আবু সাইয়েদ দ্বিতীয় বিয়ে করেন এবং প্রাপ্ত সম্পত্তি থেকে ফেরদৌস ও নাঈমকে বঞ্চিত করেন। এতে বাধা দিলে বাবার চক্ষুশূল হয়ে ওঠেন দুই ছেলে।

একপর্যায়ে ফেরদৌস ও নাঈম ৩নম্বর নলবুনিয়া গ্রামের ৩৮৩, ১৩১৫ খতিয়ানের ২২০, ২১৭, ২১৮নম্বর দাগে তার মায়ের প্রাপ্ত অংশের ৮১ শতাংশ জমিতে আলাদা বাড়ি তৈরি করে থাকেন। কিন্তু আবু সাইয়েদ দ্বিতীয় স্ত্রী-সন্তানদের পরামর্শে ফেরদৌস ও নাঈমের সম্পত্তির ওপর কুদৃষ্টি দেন। পরে চলতি বছরের আগস্ট মাসে তার ভাতিজা দেলোয়ার হাওলাদারের স্ত্রী ফাতিমা বেগমের কাছে গোপনে বাড়িটির প্রায় অর্ধেক জমি বিক্রি করে দেন।

এ নিয়ে দ্বন্দ্ব শুরু হলে নাঈম আদালতে একটি মামলা করেন। আদালত ওই জমিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। এতে আবু সাইয়েদ ক্ষিপ্ত হয়ে দুই ছেলের বিরুদ্ধে শরণখোলা থানায় মামলা করেন। এ ঘটনায় ১৪ নভেম্বর রাতে নাঈমকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠায় পুলিশ। এ সুযোগে পরদিন সকালে দেলোয়ার ও আবু সাইয়েদের সহযোগী সরোয়ার, ছত্তার, সোহান, আনোয়ার ও আব্দুর রহমানসহ তাদের বাড়ি দখল করতে যান। এ সময় বাধা দিলে ফেরদৌসকে কুপিয়ে জখম ও তার স্ত্রী সীমা বেগমকে পানিতে ফেলে দেন। এছাড়া নাঈমের স্ত্রী জেসমিন আকতারের ডান হাত ভেঙে দেয়। পরে পুলিশ তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

শরণখোলা থানার ওসি এসকে আব্দুল্লাহ আল সাইদ জানান, জমি নিয়ে বিরোধ থাকায় হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর