Alexa ছেলে হয়নি বলে তাৎক্ষণিক তিন তালাক! 

ছেলে হয়নি বলে তাৎক্ষণিক তিন তালাক! 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:৫৮ ১৯ নভেম্বর ২০১৯   আপডেট: ১৭:০২ ১৯ নভেম্বর ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ছেলে সন্তানের জন্ম দিতে পারেননি, তাই এক নারীকে তিন তালাক দেয়ার অভিযোগ উঠেছে ভারতের তেলঙ্গানার এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে।

স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়েছেন মেহরাজ বেগম নামে এক নারী। তার অভিযোগ, অন্য নারীর সঙ্গে স্বামীর সম্পর্ক রয়েছে। তাকে তালাক দিয়ে ওই নারীকে বিয়ে করতে চান বলেই তিন তালাক দেয়া হয়েছে।

সংবাদ সংস্থা এএনআইয়ের খবর অনুযায়ী, ২০১১ সালে মেহরাজ বেগমের বিয়ে হয়। বিয়ের দেড় বছরের মাথায় মেহরাজ সন্তান সম্ভবা হন। যদিও গর্ভাবস্থায় সেই সন্তান নষ্ট হয়ে যায়। এরপর স্বামী এবং শ্বশুরবাড়ির লোকজন তার উপর অত্যাচার শুরু করেন। এর পর ২০১৬ সালে তিনি এক মেয়ে সন্তানের জন্ম দেন। এরপর অত্যাচার আরো বেড়ে যায়। মেহরাজ ও তার সন্তানকে বাড়িতে রাখতে চাননি স্বামী।

সন্তান বিষয়ে পরামর্শ নেয়ার জন্য মেহরাজ তার স্বামীকে নিয়ে চিকিৎসকের কাছে যান। কিন্তু তাতেও কোনো কাজ হয় না। মেহরাজের স্বামী ছেলে সন্তান না হওয়ার জন্য স্ত্রীকেই দোষারোপ করতে থাকেন। 

১৯ সেপ্টেম্বর মেহরাজকে তিন তালাক দেন তার স্বামী। মেহরাজ স্বামীকে বিষয়টি শুধরে নিতে অনুরোধ করেন। কিন্তু কোনো কথাই শুনতে চাননি তিনি।

মেহরাজ জানিয়েছেন, তাকে বাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য চাপ দিতে থাকেন তার স্বামী। না গেলে, তার সঙ্গে তিন বছরের মেয়ে সন্তানের ক্ষতি হবে বলেও হুমকি দেয়া হয়। হুমকির মুখে বাড়ি ছেড়ে বাবার বাড়িতে চলে যান মেহরাজ বেগম।

স্বামীর বিরুদ্ধে মেহরাজ বেগম থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। পুলিশের কাছে তিনি জানিয়েছেন, স্বামী ফের বিয়ে করতে চান। তাই তাকে তিন তালাক দিয়ে অত্যাচার করে বাড়ি থেকে তাড়ানো হয়েছে।

ভারতে আইনত নিষিদ্ধ হয়েছে তাৎক্ষণিক তিন তালাক। এখন তিন তালাক শাস্তিযোগ্য অপরাধ। কিন্তু তার পরেও এমন একাধিক ঘটনা সামনে এসেছে, যেখানে আইনের তোয়াক্কা না করেই তাৎক্ষণিক তিন তালাক দেয়া হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে