Alexa ডাক্তারের কানের পর্দা ফাটালেন ছেলে, গ্রেফতার হলেন বাবা

ডাক্তারের কানের পর্দা ফাটালেন ছেলে, গ্রেফতার হলেন বাবা

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৮:৫৬ ২২ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ১৯:২৭ ২২ অক্টোবর ২০১৯

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুরে ছেলের অপরাধে গ্রেফতার হয়েছেন বাবা। মঙ্গলবার বিকেল ৩টার দিকে আব্দুজ জহুর সেতু এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার বাবার নাম মো. আব্দুল কাইয়ুম। তিনি বিশ্বম্ভরপুরের পলাশ ইউপি’র চেয়ারম্যান।

আবাসিক চিকিৎসক ডা. আখতার উজ জামান আখন্দের ওপর হামলার ঘটনায় পলাশ ইউপি চেয়ারম্যানের ছেলের বিরুদ্ধে মামলা হয়। পুলিশ এ মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান মো. আব্দুল কাইয়ুমকে গ্রেফতার করে। 

পুলিশ জানায়, সোমবার রাতেই আবাসিক চিকিৎসক ডা. আখতার উজ জামান আখন্দ বাদী হয়ে পলাশ ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কাইয়ুম ও তার ছেলের সাইদুর রহমান রাজিবকে আসামি করে থানায় মামলাকরেন। এর প্রেক্ষিতে পলাশ ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কাইয়ুমকে পুলিশ গ্রেফতার করে। এ সময় মামলার অপর আসামি চেয়ারম্যানের ছেলে সাইদুর রহমান রাজিব পলাতক রয়েছে।

এ ব্যাপারে বিশ্বম্ভরপুর থানার ওসি মাহবুবুর রহমান বলেন, আবাসিক চিকিৎসক ডা. আখতার উজ জামানের উপর পলাশ ইউপি চেয়ারম্যানের ছেলের হামলায় দায়েরকৃত মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কাইয়ুমকে গ্রেফতার করা হয়। তাকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, চেয়ারম্যানের ছেলে সাইদুর রহমান রাজিব পলাতক রয়েছে। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

রাজিব বিশ্বম্ভরপুর হাসপাতালে গিয়ে নার্সদের উত্যক্ত করতো। বিভিন্ন সময়ে মাদকদ্রব্য সেবন করেও হাসপাতাল এলাকায় গিয়ে সে সবাইকে বিরক্ত করতো। তার বখাটেপনার প্রতিবাদ করেন ডাক্তার। এসব কারণে রাজীব ডাক্তারের ওপর ক্ষ্যাপা ছিল সে। সোমবার দুপুরে তুচ্ছ বিষয় নিয়ে আবাসিক ডাক্তারের কক্ষে গিয়ে সে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ শুরু করে। একপর্যায়ে তার গায়ে হাত তোলে। থাপ্পড় দিয়ে তার কানের পর্দা ফাটিয়ে দেয়। এ সময় সাধারণ জনতার প্রতিরোধের মুখে সে পালিয়ে যায়। পরে আইনগত ব্যবস্থা নিলে ডাক্তারকে দেখে নেয়ার হুমকি দেয়।

এদিকে উপজেলার সর্বোচ্চ পদের স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে বখাটে এভাবে নির্যাতন করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সুনামগঞ্জের বিএমএ নেতারা।

বিএমএ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা ডা. আব্দুল হাকিম, সাধারণ সম্পাদক ডা. নূরুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. সৈকত দাসসহ নেতারা তীব্র নিন্দা জানিয়ে নির্যাতনকারী রাজিবকে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন।

সাইদুর রহমান রাজিব একজন বখাটে ও মাদকসেবী বলে এলাকাবাসী জানিয়েছেন। কিছুদিন আগে সে সদর উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি সোহেল আহমদ সাজুর ওপর বিশ্বম্ভরপুর নতুন পাড়ায় অতর্কিত আক্রমণ করেছিল।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ