ছুটির দিনে বাণিজ্য মেলায় উপচে পড়া ভিড়

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২০:০৪ ১১ জানুয়ারি ২০১৯   আপডেট: ২০:২৯ ১১ জানুয়ারি ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

রাজধানীর শেরেবাংলা নগর এলাকায় প্রথম দিন থেকেই জমে উঠেছে এবারের আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা। আজ শুক্রবার ছুটির দিন হওয়ার সুবাদে মেলা প্রাঙ্গণে দর্শনার্থীদের ছিল উপচে পড়া ভিড়।

বাণিজ্য মেলা প্রাঙ্গণ ঘুরে দেখা যায়, অনেক স্টলেই এখনো প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়নি। চলছে পুরোদমে কাজ। তবুও চোখে পড়ে দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভিড়।  

এবার মেলায় স্টলের মোট সংখ্যা ৬০৫টি। প্যাভিলিয়ন, মিনি-প্যাভিলিয়ন, রেস্তোরাঁও রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে প্যাভিলিয়ন ১১০টি, মিনি-প্যাভিলিয়ন ৮৩টি ও রেস্তোরাঁসহ অন্যান্য স্টল ৪১২টি।

এদিকে শুক্রবার জুম্মার নামাজের দিন থাকায় সকাল থেকে দর্শনার্থীদের তেমন উপস্থিতি দেখা না গেলেও বিকেল থেকে দেখা মেলে দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভিড়। বিভিন্ন স্টলে দোকানিদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এখনো তেমন বেচা-বিক্রি শুরু হয়নি। শুধু খাবারের দোকানগুলোতে বিক্রি চলছে। মানুষ এসে দেখছে সব। আর সব স্টল, প্যাভিলিয়নে সব ধরনের পণ্য এখন পর্যন্ত প্রদর্শন করা সম্ভব হয়নি। তবে বিক্রি গতবারের থেকে বেশি হবে বলে আশা করেন তারা।

আরএফএল এর প্যাভিলিয়নে গিয়ে দেখা যায়, এখনো সাজসজ্জার কাজ সম্পন্ন করতে পারেনি তারা। এক বিক্রেতা জানান, আমাদের প্যাভিলিয়ন সাজানোর কাজ মোটামুটি শেষ পর্যায়ে। তবে অনেক দর্শনার্থীরা আসছে, দেখছে ও দাম জানতে চাইছে। তাদের প্রথম প্রশ্নই থাকে ছাড়ের বিষয়ে। কিন্তু মেলার শুরুতে তো কোন ছাড় দেয়া হয় না। মাঝামাঝি সময়ের পরে আমরা ছাড় দিয়ে থাকি।

মেলায় ঘুরতে আসা এক পরিবার জানান, আমরা ছুটির দিনে প্রায়ই ঘুরতে বের হই। মেলা উপলক্ষে বর্তমানে এই প্রাঙ্গণ খুবই আকর্ষণীয়। তাই ঘুরতে এসেছি। কেনাকাটা করলেও মেলার শেষের দিকে করবো। এখন কেন কিনবেন না? উত্তরে বলেন, আমরা খুব ভালো করে জানি, এখন সব পণ্যের দাম তুলনামূলক বেশি থাকে।

এদিকে বন্ধের দিন থাকায় মেলা প্রাঙ্গণের দেশীয় স্টলগুলোতে ছিল নারীদের ব্যাপক উপস্থিতি। বিভিন্ন নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য, বিশেষ করে নারীদের সাংসারিক কাজের পণ্য পাওয়া যায় যে স্টলগুলোতে, সেখানেই তারা ভিড় জমান।

মেলায় কথা হয় একজন সরকারী কর্মকর্তার সঙ্গে, তিনি এসেছেন পরিবার নিয়ে। সঙ্গে আছেন স্ত্রী, ১২ বছরের একটি মেয়ে ও ১০ বছরের একটি ছেলে। তিনি মেলায় এসেছেন মূলত ঘুরে দেখতে। মেলা শেষের সময় কেনাকাটা করব। অন্যদিন ছুটি থাকে না বলে পরিবার নিয়ে মেলা প্রাঙ্গন ঘুরে দেখতে এসেছি।  

মেলায় মূলত পরিবার নিয়ে ঘুরতে এসেছি। আরেকটা লক্ষ্য ছিল বিদেশি স্টলগুলোতে কি কি পাওয়া যায় তা দেখতে। পছন্দ হলে নিয়ে নেবো। কিন্তু যা দেখছি এগুলো সারা বছর দেশে এমনিতেই পাওয়া যায়। 

এবার বাংলাদেশ ছাড়াও ২৫টি দেশের ৫২টি প্রতিষ্ঠান মেলায় অংশ নিচ্ছে। দেশগুলো হলো থাইল্যান্ড, ইরান, তুরস্ক, শ্রীলঙ্কা, মালদ্বীপ, নেপাল, চীন, মালয়েশিয়া, ভিয়েতনাম, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ভারত, পাকিস্তান, হংকং, সিঙ্গাপুর, মরিশাস, দক্ষিণ কোরিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, জার্মানি, সুইজারল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও জাপান।

এর আগে বুধবার বিকেলে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে ২৪তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার উদ্বোধন করেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। এরপর তিনি মেলার বিভিন্ন স্টল পরিদর্শন করেন। 

এদিকে অভিযোগ আছে, বাণিজ্য মেলায় গাড়ি পার্কিং এর টিকেটের গায়ে ১০ টাকা দেয়া থাকলেও নিচ্ছে ৩০ টাকা করে। এ ব্যাপারে দায়িত্বে থাকা কর্তাদের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে, কেউ কোন উত্তর দেয়নি। 

ডেইলি বাংলাদেশ/ইএ/জেডআর