চাপের মুখে ধর্ষিতাকে বিয়ে, পরে অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় পুড়িয়ে হত্যা

চাপের মুখে ধর্ষিতাকে বিয়ে, পরে অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় পুড়িয়ে হত্যা

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:৪৭ ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১৭:০৬ ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

ঝিনাইদহ শহরের পুরাতন হাটখোলা এলাকায় মুন্নী আক্তার পিংকী নামে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামী সোহরাব হোসেন সৌরভের বিরুদ্ধে।

এ ঘটনায় স্বামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শনিবার রাতে ঢাকার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় পিংকীর মৃত্যু হয়।

নিহতের মা কাজল বেগম জানান, ঝিনাইদহ শহরের পুরাতন হাটখোলার পিংকীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন সময় তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করতো সৌরভ। গত ৯ সেপ্টেম্বর তার মেয়েকে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় পিকিং ঝিনাইদহ সদর থানায় মামলা করলে পুলিশ সৌরভকে গ্রেফতার করে। পরে মিমাংসার পর সৌরভ পিংকীকে বিয়ে করে। বিয়ের পর থেকে সৌরভের পরিবার পিংকীকে মেনে নিচ্ছিল না। এমনকি ছাড়াছাড়ি করার জন্য প্রায়ই মারধর করতো।

এরই জেরে গত ১৬ ফেব্রুয়ারি পিংকীর বাড়ি এসে ২ হাজার টাকা চায় সৌরভ। পিংকী টাকা দিতে অস্বীকার করলে মারপিট করে তার গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। তাকে উদ্ধার করে প্রথমে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে ঢাকার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়। সেখানে শনিবার রাতে পিংকী মারা যায়। এ ঘটনায় নিহতের মা কাজল বেগম থানায় মামলা করলে পুলিশ সৌরভকে গ্রেফতার করে।

এ ব্যাপারে ঝিনাইদহের এসপি মো. হাসানুজ্জামান জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, পারিবারিক কলহের জেরে এ ঘটনা ঘটেছে। সৌরভ হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ