Alexa চাঁদাবাজি করতে গিয়ে ধরা খেলেন দুইজন

চাঁদাবাজি করতে গিয়ে ধরা খেলেন দুইজন

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২০:০৭ ১২ নভেম্বর ২০১৯   আপডেট: ২০:২৩ ১২ নভেম্বর ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

সাতক্ষীরা শহরের এক বেকারিতে চাঁদাবাজি করার সময় সাংবাদিক পরিচয়দানকারী দুই চাঁদাবাজকে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুরে শহরের ইটাগাছা এলাকার শাহিনুর বেকারি থেকে তাদের আটক করা হয়। এ সময় চাঁদাবাজ গ্রুপের হোতা আব্দুল হাকিম ও পলাশ নামের আরো দুইজন পালিয়ে যান।

আটকরা হলেন, শহরের মুন্সিপাড়া এলাকার আব্দুল জলিলের ছেলে মামুন হোসেন ও সদর উপজেলা বাঁকাল এলাকার আব্দুল আজিজের ছেলে মাজহারুল ইসলাম। মাজহারুল স্থানীয় পত্রিকা দৈনিক সুপ্রভাত ও মামুন হোসেন দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকার সাংবাদিক বলে পরিচয় দেন।

বেকারি মালিক আব্দুল খালেক জানান, সাংবাদিক পরিচয়দানকারী হাকিমের নেতৃত্বে ৫/৭ জনের একটি গ্রুপ তার বেকারিতে চাঁদাবাজি করতে আসেন। তারা বেকারিতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার তৈরি হচ্ছে বলে হুমকি ধামকি দিতে থাকেন এবং ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা না দিলে ভ্রাম্যমাণ আদালতে তাকে জরিমানা করা হবে বলে হুমকি দেন। তিনি বিষয়টি এসপির কাছে মোবাইল ফোনে জানালে গোয়েন্দা পুলিশের একটি টিম দুইজনকে আটক করে। এ সময় বাকি দুইজন পালিয়ে যান।

সাতক্ষীরা সদর থানার এসআই প্রদীপ কুমার জানান, চাঁদাবাজি করার সময় দুইজনকে আটক করা হয়। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যান চাঁদাবাজ গ্রুপের হোতা মুনজিতপুর গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে আব্দুল হাকিম ও তার সহযোগী আশাশুনি উপজেলার শ্রীউলা গ্রামের আবুল কালাম সরদারের ছেলে জাহিদুর রহমান পলাশ।

তিনি আরো জানান, আটক দুই চাঁদাবাজসহ এর সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে বেকারি মালিক আব্দুল খালেক বাদী হয়ে সদর থানায় একটি মামলা দায়েরর প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

সাতক্ষীরা সদর থানার থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে শহরের কয়েকজন ব্যবসায়ী নাম প্রকাশ না করার শর্তে অভিযোগ করে জানান, সাংবাদিক পরিচয়দানকারী এই চাঁদাবাজ গ্রুপটি জেলার বিভিন্ন স্থানে কখনো সাংবাদিক, কখনো ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয়ে দীর্ঘদিন ধরে চাঁদাবাজি করে আসছিলেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম