ঘরবন্দী বিষণ্ন ভিন্ন এক ঈদ

ঘরবন্দী বিষণ্ন ভিন্ন এক ঈদ

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১১:১৫ ২৫ মে ২০২০   আপডেট: ১৪:২৬ ২৫ মে ২০২০

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

ঈদ মানেই আনন্দ। ঈদ মানেই খুশি! কিন্তু এবারের ঈদ আনন্দের পূর্ণ সেই বারতা নিয়ে হাজির হয়নি। মহামারি করোনাভাইরাস ঈদের আনন্দ কেড়ে নিয়েছে। ঈদের দিন মানেই বন্ধু-পরিচিত জনদের বাড়িতে বাড়িতে ঘুরে বেড়ানো। সেমাই-জর্দা খাওয়া। নামাজ শেষে কোলাকুলি করে হৃদ্যতা জানান দেয়া! কিন্তু এবারের প্রেক্ষাপট ভিন্ন। করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে নিজ ঘরেই কাটাতে হচ্ছে ঈদের দিন।

মহামারি করোনাভাইরাসের আক্রমণে স্তব্ধ গোটা দেশ। গণপরিবহন বন্ধ থাকায় নাড়ির টানে বাড়ি ফিরতে পারেনি অনেক শহরবাসী। হয়নি এবার ঈদগাহে ঈদের জামাত। বন্ধু ও আত্মীয় স্বজনের বাসায় বেড়ানোও যাবে না। বন্ধ রয়েছে শপিংমল, পর্যটন কেন্দ্র। ঈদ উৎসবের এমন অভাবনীয় চিত্র কোনোকালে দেখেনি কেউ। এ কারণেই সবাই বলছেন, ‘ঈদ এলেও এবার উৎসব থাকবে ঘরবন্দী’।

‘ঘরবন্দী’ মানুষের এবার রমজান মাস কেটেছে ঘরে থেকেই। রমজানে ছিল না কোনো ইফতার পার্টি, বন্ধ ছিল হোটেল রেস্টুরেন্ট। ইফতার নিয়ে ছিল না কোনো রকমারি আয়োজন। বন্ধ ছিল নামি-দামি সব ইফতার বাজারও।

ইতিহাসে হয়তো এবারই প্রথম কোনো রমজান কেটেছে, যখন কিনা বন্ধ ছিল শপিংমল। ঈদকে সামনে রেখে প্রতি বছর রমজান মাসে বাহারি আয়োজন থাকে শহরের বড় বড় শপিংমলে। কিন্তু এবার মরণব্যাধি করোনায় বন্ধ রাখতে হয়েছে শপিংমলগুলো।

করোনার কারণে দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ রয়েছে সব ধরনের বিনোদন কেন্দ্রও। ঈদে শিশুদের অন্যতম আকর্ষণীয় জায়গা হলো বিনোদন কেন্দ্র। কিন্তু এবার ঘরে বসেই কাটাতে হবে শিশুদের ঈদ। ঈদের ছুটিতে মানুষ ছুটে বেড়াতো পর্যটন কেন্দ্রে। এবার ঈদে সেই বিনোদনেরও কোনো সুযোগ নেই।

করোনার ছোবলে দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ রয়েছে সব সিনেমা হল ও সিনেপ্লেক্স। করোনার সংক্রমণ থেকে রক্ষায় শুরু থেকেই এসব বিনোদন কেন্দ্র বন্ধ রয়েছে। সব মিলিয়ে এ যেন কষ্টের ঈদ!

ডেইলি বাংলাদেশ/টিআরএইচ/এআর