Alexa ধর্ষণের স্থানেই পড়ে আছে সেই ছাত্রীর বই, ইনহেলার

ধর্ষণের স্থানেই পড়ে আছে সেই ছাত্রীর বই, ইনহেলার

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:২৯ ৬ জানুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১৫:৫৮ ৬ জানুয়ারি ২০২০

ছবি- সংগৃহীত

ছবি- সংগৃহীত

রাজধানীর কুর্মিটোলায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রীকে তুলে নিয়ে ধর্ষণের ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে ব্যাগ, হাতঘড়ি, কলম ও একটি প্যান্ট। এ ছাড়াও পাওয়া গেছে ওই ছাত্রীর ব্যবহৃত বই ও ইনহেলার।

সোমবার সকালে কুর্মিটোলায় ঝোপঝাড়ের মধ্য থেকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর সদস্যরা ধর্ষণের ঘটনার আলামত এসব সংগ্রহ  করেন। র‌্যাব ছাড়াও পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের (ডিবি) একটি টিম ঘটনাস্থল পর্যবেক্ষণ করেছেন।

এ ঘটনায় রোববার রাতে ক্যান্টনমেন্ট থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই ছাত্রীর বাবা। ক্যান্টনমেন্ট থানার ওসি কাজী শাহান হক বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ঢাবি শিক্ষার্থীর বাবার অভিযোগের পর থানায় মামলা নথিভুক্ত হয়েছে। খুব দ্রুত আসামিদের গ্রেফতার করা হবে বলে জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা। 

কাজী শাহান হক বলেন, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই ছাত্রীর সঙ্গে গুলশান বিভাগেরর ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারা দেখা করেছেন। পরিবারের সঙ্গেও কথা বলেছেন।

রোববার ক্লাস শেষে বিকেল সাড়ে ৫টায় বান্ধবীর বাসায় যাওয়ার উদ্দেশে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) বাসে উঠেন ওই শিক্ষার্থী। উদ্দেশ্য ছিল একসঙ্গে পরীক্ষার প্রস্তুতি নেয়া। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে কুর্মিটোলায় বাস থেকে নামেন তিনি। বাস থেকে নেমে ফুটপাত দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন। এ সময় হঠাৎ অজ্ঞাত পরিচয় কয়েজন তার মুখ চেয়ে ধরে। সঙ্গে সঙ্গে তিনি অচেতন হয়ে পড়েন। এরপর অদূরেই নির্জন স্থানে তুলে নিয়ে কয়েকজন তাকে ধর্ষণ করে। 

ধর্ষণের শিকার ওই শিক্ষার্থীর বরাত দিয়ে সহপাঠীরা জানান, সন্ধ্যা ৭টার পর তাকে অচেতন করে নির্জন স্থানে নিয়ে যাওয়া হয়। এক পর্যায়ে তার জ্ঞান ফিরলে পাশবিক নির্যাতনে আবারো তিনি অচেতন হয়ে যান। রাত ১০টার দিকে জ্ঞান ফিরে পাওয়ার পর ওই ছাত্রী নিজেকে দেখতে পান একটি নির্জন স্থানে পড়ে আছেন। এরপর সেখান থেকে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় বান্ধবীর বাসায় যান এবং বান্ধবীকে পুরো ঘটনা জানান। খবর পেয়ে সহপাঠীরা প্রথমে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যান। রাত ১২টার দিকে ওই ছাত্রীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ সার্ভিস সেন্টারে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে সেখানেই চিকিৎসাধীন আছেন তিনি। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এসআই