গোপালগঞ্জে স্কুলে ও রাস্তায় আশ্রয় নিয়েছে ৫ শতাধিক বানভাসি

গোপালগঞ্জে স্কুলে ও রাস্তায় আশ্রয় নিয়েছে ৫ শতাধিক বানভাসি

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি   ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৫:১৭ ৪ আগস্ট ২০২০  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

গোপালগঞ্জে প্রতিদিনই নতুন নতুন এলাকা বন্যার পানিতে তলিয়ে যাচ্ছে। আগে গোপালগঞ্জ সদর, কাশিয়ানী ও মুকসুদপুর উপজেলার ১৫টি গ্রামের বাসিন্দারা পানিবন্দী ছিল। এর সঙ্গে নতুন করে যোগ হয়েছে কোটালীপাড়া উপজেলার কলাবাড়ি ইউপির শিমুলবাড়ি, কাফুলাবাড়ি এবং রামনগর, কলাবাড়ি ও বৈকন্ঠপুর গ্রাম।

এ নিয়ে জেলার ২০টি গ্রামের অন্তত তিন হাজার পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন। ৫শ’ পরিবার উঁচু এলাকার বিভিন্ন স্কুলে ও রাস্তার পাশে কুড়ে ঘর বানিয়ে সেখানে আশ্রয় নিয়েছে। এসব এলাকার ছোট বড় এক হাজারের বেশি পুকুর বন্যার পানিতে ভেসে গেছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড বলেছে মধুমতি নদীতে পানি এখনো বিপদসীমার ৪০ সেন্টিমিটার এবং মধুমতি বিলরুট চ্যানেলে ১০ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। যা সোমবার মধুমতি নদীতে পানি বিপদসীমার ৩৮ সেন্টিমিটার এবং মধুমতি বিলরুট চ্যানেলে ১০ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়েছিল।

জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এরইমধ্যে দূর্গতদের সাহায্যের জন্য ৩শ’ মেট্রিক টন চাল এবং শিশু, গো-খাদ্য ও শুকনো খাবারের জন্য ৬ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএইচ