গাড়ির যন্ত্রাংশ থেকে ভেন্টিলেটর তৈরি করল আফগান কিশোরীরা

গাড়ির যন্ত্রাংশ থেকে ভেন্টিলেটর তৈরি করল আফগান কিশোরীরা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২২:১০ ২১ মে ২০২০  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

আফগানিস্তানের মোট জনসংখ্যা প্রায় ৩৮.৯ মিলিয়ন। এই জনসংখ্যার জন্য পুরো দেশটিতে সর্বোচ্চ ৪০০টি ভেন্টিলেটর রয়েছে। দেশটিতে সাত হাজার ৬৫০ জন করোনা আক্রান্ত আছেন এবং এখন পর্যন্ত ১৭৮ জন মারা গেছেন। তবে পরিস্থিতি আরো খারাপ হতে পারে বলে কর্তৃপক্ষ আশঙ্কা করছে।

দেশের এমন ক্রান্তিকালে এগিয়ে এসেছে কিছু উদ্যমী কিশোরী। আফগানিস্তানের একটি মেয়ে রোবোটিক্স দলের ১৪ থেকে ১৭ বছর বয়সী এই কিশোরীরা ব্যবহৃত টয়োটা করোলার মোটর এবং একটি হোন্ডা মোটরসাইকেলের একটি চেইন ড্রাইভ ব্যবহার করে একটি প্রোটোটাইপ তৈরি করেছে। 

বিবিসি’র একটি প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, ওই রোবোটিক্স দলের মতে, এই ভেন্টিলেটর জরুরি পরিস্থিতিতে শ্বাসকষ্টজনিত রোগীদের অস্থায়ী স্বস্তি দেবে।

বিশ্বব্যাপী ভেন্টিলেটরের ঘাটতি দেখা দিচ্ছে। এছাড়াও বৈশ্বিক বাজারে এর দাম প্রায় ৩০ হাজার ডলার। অনেক দেশের জন্যই যা অত্যন্ত ব্যয়বহুল। তবে কিশোরীদের তৈরি ভেন্টিলেটরটি কিনতে খরচ হবে ৬০০ ডলারেরও কম।

রোবোটিক্স দলের সদস্য নাহিদ রহিমি বলেন, আমাদের প্রচেষ্টা দিয়ে একটি জীবন বাঁচাতে পারলেও এই মুহূর্তে এটি গুরুত্বপূর্ণ।

গাড়ির যন্ত্রাংশ থেকে সাশ্রয়ী মূল্যের ভেন্টিলেটর তৈরি করেছে।প্রথম পর্যায়ের কাজটি শেষ হয়েছে এবং দুইদিন আগে এটি একটি হাসপাতালে পরীক্ষাও করা হয়েছিল। দলটি দ্বিতীয় পর্যায়ে কাজ করছে। এখন তারা বাজারের দামের এক ভাগ দামে ভেন্টিলেটর সরবরাহের প্রতিযোগিতায় নেমেছে। মে মাসের শেষের দিকে ভেন্টিলেটরটি সরবরাহের প্রচেষ্টায় আছে।

টিম অধিনায়ক সুমাইয়া ফারুকী বলেন, আমরা আমাদের চিকিত্সক এবং নার্সদের সহায়তা করার জন্য অর্থপূর্ণ কিছু করার চেষ্টা করছি। বিষয়টি আমাদের জন্য অত্যন্ত গর্বের। তাছাড়া এই দলের একটি অংশ হতে পেরে আমি খুব গর্ববোধ করি। 

টাইম ম্যাগাজিনের বিশ্বের ১০০ প্রভাবশালী ব্যক্তিদের মধ্যে অন্যতম ব্যক্তিত্ব এবং দলটির প্রতিষ্ঠাতা, উদ্যোক্তা রোয়া মাহবুব বলছেন, তার দল  মের শেষের দিকে ভেন্টিলেটর সরবরাহের প্রত্যাশা করছে। এগুলোর কাজ প্রায় ৭০ শতাংশ সমাপ্ত হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, এই প্রকল্প ইঞ্জিনিয়ারিং শিল্পে নারীদের ধারণায় পরিবর্তন আনবে। 

দলের আরেক সদস্য এলহাম মনসোরি বলেন, ভেন্টিলেটর তৈরি করতে সক্ষম হলে অল্প বয়সে মেয়েদের পড়ানোর গুরুত্ব এবং আমাদের সমাজে সক্রিয় নাগরিক হিসাবে নারীদের পদচারণা বৃদ্ধি পাবে।

দলটির এমন মহৎ উদ্যোগে তাদের প্রশংসা করেছেন দেশটির রাষ্ট্রপতি এবং স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

রোয়া বলেন, আমি খুশি যে রাষ্ট্রপতি আশরাফ গনি ব্যক্তিগতভাবে আমাদের প্রকল্পটি সন্ধান করতে এবং যে কোনো সম্ভাব্যতায় আমাদের সহায়তা করার জন্য আদেশ দিয়েছেন। এছাড়া আফগান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ও মেয়েদের সহায়তা করছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ওয়াহিদ মায়ার বলেন, আমরা তাদের এই উদ্যোগের প্রশংসা করছি। এছাড়া অন্যান্য বৈজ্ঞানিক গবেষণার মতো এটিও যাচাই-বাছাই করে অনুমোদন দেয়া হবে।

"আফগান স্বপ্নদ্রষ্টা" হিসাবে খ্যাত এই  রোবোটিক্স দলের মেয়েরা পশ্চিম প্রদেশ হেরাত বাসিন্দা। যেখানে আফগানিস্তানের প্রথম কোভিড-১৯ রোগী পাওয়া যায়। এই মহামারীটির কেন্দ্রস্থল ইরানের কাছাকাছি থাকার কারণে, এই অঞ্চলের প্রাদুর্ভাবের কেন্দ্রস্থল।

এর আগে ২০১৭ সালে এই কিশোরীরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে একটি আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় একটি বিশেষ পুরস্কার লাভ করে আলোচনায় আসে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস