Alexa গালিগালাজের প্রতিবাদ করায় অন্তঃসত্ত্বার পেটে লাথি

গালিগালাজের প্রতিবাদ করায় অন্তঃসত্ত্বার পেটে লাথি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:৩০ ৭ ডিসেম্বর ২০১৯  

ছবি: প্রতীকী

ছবি: প্রতীকী

গালিগালাজের প্রতিবাদ করায় চার মাসের অন্তঃসত্ত্বাকে রাস্তায় ফেলে মারধরের অভিযোগ উঠল প্রতিবেশী যুবকদের বিরুদ্ধে। শুক্রবার রাতে চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের দক্ষিণ ২৪ পরগনার ক্যানিংয়ের উত্তর করাকাটি গ্রামে। বর্তমানে ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই মহিলা। আক্রান্তের পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, এদিন রাতে ক্যানিংয়ের উত্তর করাকাটি গ্রামে স্নেহলতা হালদার নামে ওই বধূর বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে ছিল প্রতিবেশী কয়েকজন যুবক। সেখানে দাঁড়িয়ে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করছিল তারা।

এই ঘটনার প্রতিবাদ করেন স্নেহলতা নামে ওই মহিলা। অভিযোগ, এরপরই অন্তঃসত্ত্বা ওই বধূর উপর চড়াও হয় অভিযুক্ত যুবকেরা। রাস্তায় ফেলে বেধড়ক মারধর করা হয় তাকে। এলোপাথাড়ি লাথি মারা হয় তার পেটে।

বিষয়টি টের পেয়ে মহিলাকে বাঁচাতে গেলে আক্রমণ করা হয় তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যদেরও। স্বাভাবিকভাবেই মারধরের জেরে অসুস্থ হয়ে পড়েন ওই বধূ। গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় পরিবারের সদস্যরা মহিলাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। বর্তমানে সেখানেই চিকিৎসাধীন স্নেহলতাদেবী। 

হাসপাতাল সূত্রে খবর, আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছেন ওই মহিলা। চিকিৎসা চলছে। পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে, এরই মধ্যে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ক্যানিং থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযুক্তদের শাস্তির দাবিতে সরব হয়েছেন তারা।

পুলিশ সূ্ত্রে জানা গেছে, আক্রান্তের পরিবারের তরফে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তদন্ত শুরু হয়েছে। অবিলম্বেই অভিযু্ক্তদের গ্রেফতার করা হবে। ঘটনার প্রতিবাদে সরব হয়েছেন এলাকার বাসিন্দারাও। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএইচ