Alexa গাছ লাগা‌নো তার ৩৮ বছ‌রের নেশা

গাছ লাগা‌নো তার ৩৮ বছ‌রের নেশা

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৫:৪৫ ২১ অক্টোবর ২০১৯  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

নিজ খরচে ৩৮ বছর ধরে গাছ রোপণ করেছেন শাজাহান বিশ্বাস। মানিকগঞ্জের হরিরামপুরের কৌড়ি গ্রামে তিনি  'বৃক্ষপ্রেমিক শাজাহান' নামে পরিচিত। প্রায় ৬০ থেকে ৭০ হাজার গাছ রোপণ করেছেন তিনি।

তার চেষ্টায় হরিরামপুরের কৌড়ি গ্রামের প্রতিটি বাড়িতেই সুশৃঙ্খল বৃক্ষরাজি রয়েছে। গ্রামটির আঁকাবাঁকা পথের দুই পাশে বনজ, ফলদ ও ঔষধি বৃক্ষের পূর্ণ সবুজের সমাহার। দীর্ঘ সময় ধরে একটু একটু করে গড়ে সবুজের এই সাম্রাজ্য গড়ে তুলেছেন শাজাহান বিশ্বাস। গাছকে তিনি এতোটাই ভালোবাসেন যে সংসার করারও সুযোগও হয়নি তার। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত গাছ লাগিয়ে যেতে চান ষাট বছরের এই বৃক্ষপ্রেমিক।

এখন উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে গাছের উপকারিতা সম্পর্কে মানুষকে সচেতন করার কাজ করছেন তিনি।

শাজাহান বিশ্বাস জানান, এইচএসসি পাশের পর ১৯৭৬ সালে বিদেশে চলে যান তিনি। প্রবাস জীবনে বিভিন্ন দেশের বনাঞ্চল আর বৃক্ষরোপণ দেখে উদ্বুদ্ধ হন এবং পাঁচ বছর পর দেশে ফিরে গড়ে তোলেন নার্সারি। সেখানে চারা উৎপাদন করে সড়কের দুইপাশে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, সরকারি-বেসরকারি অফিসের ক্যাম্পাসে নিজের খরচে গাছ লাগাতে শুরু করেন। সেই থেকে দীর্ঘ ৩৮ বছর শুধু গাছই লাগিয়েছেন তিনি।

তার এমন মহৎ উদ্যোগ আর অক্লান্ত পরিশ্রমের ফলে হরিরামপুরের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য বেড়ে গেছে। কৌড়ি গ্রামের সড়কের দুইপাশ জুড়ে গাছ লাগানোর কারণে মানিকগঞ্জসহ আশেপাশের জেলার মানুষের কাছে এই স্থানটি দর্শনীয়স্থান হিসেবে পরিচিত লাভ করেছে।

শাজাহান মিয়ার এমন কাজের প্রশংসা করেছেন স্থানীয় বন বিভাগের কর্মকর্তারা। বন বিভাগ থেকে শাজাহানকে পরামর্শ ও সহযোগিতা করা হয় বলে জানিয়েছেন তারা। তারা আরো জানায়, শাজাহান মিয়ার এমন কর্মকাণ্ডে উদ্বুদ্ধ হয়ে আশেপাশের গ্রামের মানুষও কয়েক লাখ গাছ রোপণ করেছে।

এমনকি তার এই কর্মকাণ্ডে অর্থনৈতিকভাবেও উপকার পাচ্ছেন এলাকার মানুষ। ওই গ্রামের কয়েকজন জানায়, অনেকে গাছ বিক্রি করে বাড়ি নির্মাণ এমনকি সন্তানের পড়ালখা ও বিয়েও দিয়েছেন।

বৃক্ষপ্রেমিক শাজাহান বিশ্বাস জানান, উদ্ভিদ আর প্রাণী এমনভাবে জড়িত একেঅপরকে কে ছাড়া নিরুপায়। এছাড়াও আমাদের বেঁচে থাকার জন্য যে পরিমাণ উদ্ভিদ প্রয়োজন তা নেই। এভাবে চলতে থাকলে একসময় আমাদের দেশ মরুভূমি হয়ে যাবে।

তিনি বলেন, আমি যেভাবে গাছ রোপণ করছি সারাদেশের মানুষ যদি সেভাবে করতো তাহলে বাংলাদেশ উন্নত ও সমৃদ্ধ হতো। সারাদেশে যদি এভাবে পরিকল্পনা অনুযায়ী গাছ রোপণ করা হতো তাহলে দেশে কোনো অভাব থাকতো না। এই দেশের প্রাকৃতিক ভারসাম্য কখনো নষ্ট হতো না। আমি যখন আমার গ্রামের মেঠো পথ দিয়ে হেটে যাই তখন দেখি গাছের ছায়ার নিচে বসে অনেক কৃষক বিশ্রাম নিচ্ছে তখন মনে হয় আমি সফল।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস