গাছে না উঠলে পাওয়া যেত না নেটওয়ার্ক 

গাছে না উঠলে পাওয়া যেত না নেটওয়ার্ক 

স্পোর্টস ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১১:০৭ ১৫ জুলাই ২০২০  

গাছে উঠে কথা বলছেন অনিল

গাছে উঠে কথা বলছেন অনিল

বেশ কয়েক বছর আগে দেশের একটি বেসরকারি টেলিকম কোম্পানির বিজ্ঞাপন বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিল। সেখানে দেখা যায়, গাছের ওপর উঠে ফোনের নেটওয়ার্ক পাওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। বর্তমানে আমাদের দেশে এমন সমস্যা খুব বেশি না থাকলেও ভারতে অনেক অঞ্চলেই এটা স্বাভাবিক ব্যাপার। সম্প্রতি এমন নেটওয়ার্ক সমস্যার মুখে পড়েছিলেন আইসিসির এলিট প্যানেলের আম্পায়ার অনিল চৌধুরীও। তবে বর্তমানে সমস্যার সমাধান লাভ করেছেন তিনি। 

তিনি মাঠে থাকার সময় তার আঙুলের দিকে বিশ্বজুড়ে ক্রিকেট দর্শকরা তাকিয়ে থাকে। আউটের আবেদনে তিনি কী সংকেত দেবেন সেটা দেখার অপেক্ষায় থাকেন ব্যাটসম্যান-বোলাররা। অথচ নিজ গ্রামে গিয়ে তিনিই পড়েন সংকেতের সমস্যায়। 

করোনাভাইরাসের কারণে গত মার্চে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ভারতের ওয়ানডে সিরিজ মাঝপথেই বন্ধ হয়ে যায়। এরপর অনিল চৌধুরী তার গ্রামের বাড়ি দানগ্রলে চলে যান। ভারতের উত্তর প্রদেশের এই গ্রামটি রাজধানী দিল্লি থেকে প্রায় ৮০ কিলোমিটার দূরে।

গ্রামের বাড়ি গিয়েই ধাক্কা খান আইসিসির আন্তর্জাতিক প্যানেলের এই আম্পায়ার। সেখানে গিয়ে তিনি দেখতে পান মোবাইলে কথা বলতে চাইলে গ্রামের তরুণদের গাছ বেয়ে ওপরে উঠতে হয়। যার কারণ ছিল গ্রামে ঠিকমতো নেটওয়ার্ক বা সিগন্যাল পাওয়া যায় না। গাছের ওপরে উঠলে মাঝেমাঝে তাও একটু নেটওয়ার্ক পাওয়া যায়! 

এই নেটওয়ার্ক সমস্যার কারণে বিপাকে পড়েন অনিল। কারণ সিগন্যাল না থাকায় বাড়িতে বসে আইসিসির বিভিন্ন কাজ করতে তার বিবিধ সমস্যা হচ্ছিল। এমতাবস্থায় বিষয়টি নিয়ে সংবাদমাধ্যমে কথা বলেন অনিল। খবর প্রকাশ হওয়ার পরপরই একটি টেলিকম কোম্পানি তার সঙ্গে যোগাযোগ করে দানগ্রল গ্রামে একটি টাওয়ার স্থাপন করেছে।

বর্তমানে গ্রামের নেটওয়ার্ক সমস্যার সমাধান হয়ে যাওয়ায় বেশ খুশি অনিল। সংবাদমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘এখন আর আমাকে আগের মতো ভিডিও কনফারেন্সের জন্য দিল্লির শাটল ট্রেন ধরতে হয় না। গ্রামের বাড়িতে বসেই এখন আইসিসির কর্মশালায় অংশ নিতে পারি।’

ডেইলি বাংলাদেশ/এএল