Alexa গাইবান্ধা গিয়ে যা দেখবেন

গাইবান্ধা গিয়ে যা দেখবেন

ভ্রমণ প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১০:২৯ ৩০ এপ্রিল ২০১৯  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

উত্তরবঙ্গের ঐতিহ্যবাহী জনপদ গাইবান্ধা জেলায়ও রয়েছে বেশ কয়েকটি দর্শনীয় ও ঐতিহাসিক স্থান। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- বালাসীঘাট, প্রাচীন মাস্তা মসজিদ, গাইবান্ধা পৌর পার্ক, বর্ধনকুঠি, এসকেএস ইন, ফ্রেন্ডশিপ সেন্টার ও মীরের বাগানের ঐতিহাসিক শাহসুলতান গাজীর মসজিদ। চলুন কয়েকটি জায়গার বিস্তারিত জেনে নিই-

বালাসীঘাট

গাইবান্ধার মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় জায়গা এটি। যমুনার কোলঘেসে বাঁধটি প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের কারণে ধীরে ধীরে আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে। অনেকেই পরিবার ও বন্ধুবান্ধব নিয়ে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এখানেই কাটিয়ে দেন। এখানে এসে নিজের পছন্দমতো জায়গা থেকে দাঁড়িয়ে নদীর বুকে সুর্যাস্তের দৃশ্য উপভোগ করা যায়। জায়গাটিতে যেতে হলে গাইবান্ধা জেলা বাসস্ট্যান্ড হতে অটোরিকশা, রিকশা বা সিএনজি যোগে যেতে হবে।

ফ্রেন্ডশিপ সেন্টার

পৌর পার্ক

গাইবান্ধা পৌরসভার নিয়ন্ত্রনাধীন সামাজিক বিনোদন কেন্দ্র হিসাবে অতি সুপরিচিত একটি উন্মুক্ত স্থান এটি। জেলা শহরে বসবাসকারীদের চিত্তবিনোদনের কথা বিবেচনা করে ১৯২৭ সালে জমিদার গোবিন্দ লাল রায়ের দান করা ১ একর ৭ শতক জমিতে গাইবান্ধা পৌর পার্ক যাত্রা শুরু করে। একটি পুকুরকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠা পার্কে বিভিন্ন রকমের ফুল, ফল ও বনজ গাছ রয়েছে। আর পুকুরের মাঝখানে পানির ফোয়ারা এবং এক পাশে সান বাধানো ঘাট আছে। শান্ত সুন্দর এই পুকুরের পাড়ে বসে নিশ্চিন্তে একটি বিকেল কাটিয়ে দেয়া যায় তাই বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এখানে দর্শনার্থীর সংখ্যাও বাড়তে থাকে।

ফ্রেন্ডশিপ সেন্টার

স্থাপত্য শিল্পে এক অনবদ্য সৃষ্টি ফ্রেন্ডশিপ সেন্টারটি শুধু গাইবান্ধা নয় অবাক করেছে বিশ্বকে! ফ্রেন্ডশিপ সেন্টারটি বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার কার্যালয়। ভবনটির ছাদ ভূমি সমতলে আর বাকি অংশটুকু মাটির নিচে অবস্থিত। ছাদটা যেন বিভিন্ন ধরনের ঘাষের মাঠ। ভবনটি দেখতে প্রতিদিনই অনেকেই ভিড় করেন। ভবনটির ভেতরের সবকিছুও দৃষ্টিন্দন। গাইবান্ধা থেকে রিকশা, অটোরিকশা ও মোটরসাইকেল ভাড়া করে যেতে পারেন ফ্রেন্ডশিপ সেন্টারে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে

Best Electronics
Best Electronics