Alexa খুঁড়িয়ে হাঁটছেন মিন্নি, রাতে ঘুমাতেও পারছেন না!

খুঁড়িয়ে হাঁটছেন মিন্নি, রাতে ঘুমাতেও পারছেন না!

বরগুনা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:৩৮ ২৪ জুলাই ২০১৯   আপডেট: ১৬:৪৯ ২৪ জুলাই ২০১৯

ছবি- সংগৃহীত

ছবি- সংগৃহীত

বরগুনা সদরের রিফাত হত্যাকাণ্ডের প্রধান সাক্ষী থেকে আসামি বনে যাওয়া আয়শা সিদ্দিকা মিন্নির সঙ্গে জেলহাজতে দেখা করেছেন তার আইনজীবী মো. মাহবুবুল বারী আসলাম। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন এ মামলার অপর আইনজীবী সাইফুর রহমান সোহাগ। 

বরগুনা জেলা কারাগারে  বুধবার দুপুরে মিন্নির সঙ্গে তারা ১০ মিনিটের মতো কথা বলেছেন বলে জানিয়েছেন আইনজীবী মাহবুবুল বারী আসলাম।

কারাগার থেকে বের হয়ে মাহবুবুল বারী আসলাম বলেন, মিন্নির খোঁজখবর নেয়ার পাশাপাশি তাকে কিছু আইনি পরামর্শ দেয়ার জন্য মিন্নির সঙ্গে দেখা করতে জেলা কারাগারে যাই। মিন্নির পুরো শরীরে ব্যথা আছে। তিনি রাতে ঘুমাতে পারেন না। মানসিকভাবে বিপর্যস্ত সে।

তিনি আরো বলেন, মিন্নি রিফাত হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে যে জবানবন্দি দিয়েছে তা পুলিশ শিখিয়ে দিয়েছে। সেই জবানবন্দি মিন্নি প্রত্যাহার করতে চাচ্ছে। তাই আমি মিন্নিকে এই স্বীকারোক্তি প্রত্যাহারের আবেদনের প্রক্রিয়া শিখিয়ে দিয়েছি।

আসলাম বলেন, মিন্নি জেলহাজতে থাকা অবস্থায় পড়াশোনা করতে চায় জানিয়ে আইনজীবী আরও বলেন, মিন্নির পড়াশোনার বিষয়ে আবেদন করা হলে জেলার আবেদন মঞ্জুর করবেন বলে জানিয়েছেন।

মিন্নি একটু খুঁড়িয়ে হাঁটছে জানিয়ে আইনজীবী আরও বলেন, মিন্নির চিকিৎসার দরকার হলে কারা কর্তৃপক্ষ তার চিকিৎসার ব্যবস্থা করবে বলে জেলার জানিয়েছেন।

এর আগে বরগুনার মাইঠা এলাকার বাবার বাসা থেকে মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোরসহ মিন্নিকে জিজ্ঞাসাবাদ ও তার বক্তব্য রেকর্ড করতে বরগুনার পুলিশ লাইন্সে নিয়ে যায় পুলিশ। 

এরপর দীর্ঘ ১০ ঘণ্টার জিজ্ঞাসাবাদ ও বিভিন্ন মাধ্যম থেকে পাওয়া তথ্য-উপাত্ত পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে বিশ্লেষণ ও পুলিশের কৌশলী এবং বুদ্ধিদীপ্ত প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে আটকে যান মিন্নি। বেরিয়ে আসে হত্যাকাণ্ডে তার সম্পৃক্ততার প্রমাণ। এরপরই মিন্নিকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএস