Alexa ক্লাস ফেলে সব অনুষ্ঠানে থাকেন এই শিক্ষক

ক্লাস ফেলে সব অনুষ্ঠানে থাকেন এই শিক্ষক

নিউজ ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:৫৩ ৮ আগস্ট ২০১৯  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

সরকারি বেসরকারি প্রায় সব অনুষ্ঠানেই উপস্থিত থাকেন তিনি। বসেন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের আসনে। অনুষ্ঠান শেষ করেই তারপর তিনি আসন ছাড়েন। এমন ব্যক্তি যখন সরকারি একটি কলেজের শিক্ষক, তাহলে তার ক্লাস চলার সময়ে শিক্ষার্থীদের পড়ান কে? এই প্রশ্ন আসবেই।

খোঁজ নিয়ে জানা গেল সেই শিক্ষকের পরিচয়। বাগেরহাট জেলার রামপাল উপজেলার রামপাল সরকারি কলেজের ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক তিনি। নাম সাইফুল আলম বখতিয়ার। গত শনিবার তাকে দেখা গেল বাগেরহাটের মোংলায় একটি বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে। দুপুর ১২টায় অনুষ্ঠান চলার সময় তিনি উপস্থিত ছিলেন 'আমন্ত্রিত অতিথির' আসনে। ওদিকে তখন তার সরকারি কলেজও খোলা। অনুষ্ঠানে এই শিক্ষককে আমন্ত্রণই করা হয়নি বলে নিশ্চিত করেছেন অনুষ্ঠানের আয়োজক প্রতিষ্ঠান বাগেরহাট পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির সহকারী জেনারেল ম্যানেজার অঞ্জন কুমার সরকার।

এ বিষয়ে রামপাল সরকারি কলেজের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও ইউএনও তুষার কুমার পাল বলেন, “ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগের সত্যতা যাচাইয়ে আমি শনিবার দুপুর ১২টায় ওই কলেজে গিয়ে তাকে পাইনি। পরে শুনেছি তিনি মোংলায় একটি অনুষ্ঠানে রয়েছেন। তার বিরুদ্ধে আমি ব্যবস্থা নেব।”

কলেজটির ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ দীনবন্ধু পালের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, “প্রভাষক সাইফুল আমার অনুমতি নিয়েই বিভিন্ন প্রোগ্রামে যায়।”

এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক রামপাল সরকারি কলেজের কয়েকজন শিক্ষক ও একাধিক শিক্ষার্থীরা জানান, কলেজের ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক সাইফুল আলম বখতিয়ার প্রায় সময়ই ক্লাসে উপস্থিত থাকেন না। যে কারণে প্রতিবছর এইচএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ হলে তার ইংরেজি বিষয়েই অকৃতকার্য হন বেশিরভাগ শিক্ষার্থী। সাইফুল আলম বখতিয়ার ক্লাসে অনুপস্থিত থাকার কারণেই এমনটি হচ্ছে বলে মনে করেন তারা। এতে শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তারা আরো বলেন, ওই শিক্ষক বেশিরভাগ সময়ই ক্লাস ফেলে সরকারি বেসরকারি (উপজেলা প্রশাসন ও এনজিও) বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগ দেন। কেন এমনটি করেন জানতে চাইলে ওই শিক্ষক বলেন, “আমি সাধারণত ক্লাস ফেলে বের হই না। যদিও বের হই প্রিন্সিপাল স্যারের (ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ দীনবন্ধু পাল) অনুমতি নিয়ে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যাই।”

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ