Alexa কোন পথে জাতীয় পার্টি?

কোন পথে জাতীয় পার্টি?

সোহেল রাহমান ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৭:৪২ ৩ আগস্ট ২০১৯   আপডেট: ০৮:৪৮ ৪ আগস্ট ২০১৯

কার্টুন: আনিস মামুন

কার্টুন: আনিস মামুন

জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের জীবদ্দশাতেই দলটিতে ছিল দুটি বিপরীতমুখী ধারা। বেঁচে থাকতে তিনি তার ছোট ভাই জি এম কাদেরকে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দেয়ার পর দলে কোন্দল নতুন করে মাথাচাড়া দেয়। গত ১৪ জুলাই এরশাদের মৃত্যুর পর কোন পথে যাবে জাতীয় পার্টি সেটা নিয়েই রাজনৈতিক মহল ও সাধারণ মানুষের মধ্যে আলোচনা চলছে।

যদিও জাতীয় পার্টির বেশ কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতা বলছেন, দলটি স্ব-মহিমায়ই থাকবে। এরশাদের দেখানো পথেই এগিয়ে যাবে। আবার দলের কারো কারো ভিন্নমতও আছে।

দলটির বর্তমান চেয়ারম্যান জিএম কাদেরের দাবি পার্টিতে কোনো বিভক্তি নেই। আর সমন্বয়হীনতার অভিযোগ করেছেন সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদ। পার্টিতে জিএম কাদেরের চেয়ারম্যান পদের বিরোধিতা করে গত ২২ জুলাই রওশনসহ ১০ প্রেসিডিয়ামের নাম উল্লেখ করে প্রচার হওয়া বিবৃতি নিয়ে মুখ খুলছেন ওই সব প্রেসিডিয়াম সদস্যরা।

রওশনের ঘনিষ্ঠ সূত্র নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, রওশন এরশাদ পার্টিতে বিভক্তি বা ভাঙন চান না। এরশাদের অবর্তমানে পার্টিকে আরো শক্তিশালী করার ইচ্ছা তার। জিএম কাদের পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে যে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে রওশন এরশাদের সঙ্গে পরামর্শ না করাটাই সমস্যা।

সূত্রের দাবি, পার্টিতে সমন্বয়হীনতা রয়েছে বলে মনে করেন রওশন। আর এই বিষয়ে সিনিয়র কো-চেয়ারম্যানকে সমর্থন করছেন জেষ্ঠ্য নেতারাও। তারাও চান সবাইকে সঙ্গে নিয়ে পার্টি পরিচালনা করুক নতুন চেয়ারম্যান।

সূত্রটি আরো জানায়, জিএম কাদের পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান, পূর্ণাঙ্গ নন। এই মর্মে গত ২২ জুলাই গভীর রাতে রওশন এরশাদসহ পার্টির ১০ জন প্রেসিডিয়াম ও এমপির নামে একটি বিবৃতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ পায়। সেই বিবৃতিও দেয়ার পক্ষে ছিলেন না রওশন এরশাদ। পার্টির দুই-একজন অতি উৎসাহী প্রেসিডিয়াম সদস্য রওশনকে অনেকটা ভুল বুঝিয়ে ও আকুতি-মিনতি করে এ বিবৃতিতে স্বাক্ষর করান। ওই বিবৃতিতে নাম থাকা নয়জনের মধ্যে ছয়জনই জানান, এমন কোনো বিবৃতিতে আমরা স্বাক্ষর করিনি। তবে তারা বলেন, রওশন এরশাদ ও জিএম কাদেরের সমন্বয়েই দল পরিচালিত হোক। এ ক্ষেত্রে জিএম কাদের পার্টির চেয়ারম্যান ও রওশন এরশাদ সংসদে বিরোধীদলের ভূমিকা পালন করবেন।

বিবৃতিতে নাম উল্লেখ থাকা রওশন এরশাদের ঘনিষ্ঠজন বলে পরিচিত পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ফখরুল ইমাম বলেন, আমরা জিএম কাদেরের বিপক্ষে নই। আমরা সবাই রওশন এরশাদ ও জিএম কাদেরসহ সবাইকে নিয়ে দলকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই। ম্যাডামের (রওশন) এ বয়সে চাওয়া-পাওয়ার কিছু নেই। উনি চান সম্মান। জিএম কাদের তার সঙ্গে পরামর্শক্রমে দল পরিচালনা করবেন এটাই ম্যাডামসহ সবার প্রত্যাশা।

এ বিষয়ে পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য হাজি সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন বলেন, রওশন এরশাদ পার্টির সর্বজন স্বীকৃত শ্রদ্ধেয় ব্যক্তি। কিন্তু সারাদেশে নেতৃত্ব দেয়ার জন্য যে বয়সের প্রয়োজন, সেই বয়স এখন তার নেই। জিএম কাদের একজন উচ্চ শিক্ষিত, দুর্নীতিমুক্ত ও বিনয়ী এবং সর্বমহলে তার একটি উজ্জল ভাবমূর্তি রয়েছে। তার ও রওশনের নেতৃত্বে পার্টি ঐক্যবদ্ধ।

পার্টির অপর প্রেসিডিয়াম সদস্য এ টি ইউ তাজ রহমান বলেন, জিএম কাদের ও রওশন এরশাদের নেতৃত্বে যদি দল পরিচালিত হয়, তাহলে আগামী দিনে জাতীয় পার্টি সুসংগঠিত ও শক্তিশালী দল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হবে। দেশের তৃণমূল নেতাকর্মীরাও চান রওশন এরশাদ ও জিএম কাদেরের সমন্বয়ে পার্টি পরিচালিত হোক। তবেই আমরা পল্লীবন্ধু এরশাদের অসমাপ্ত স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে পারবো।

প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী মামুনুর রশিদ বলেন, আমরা মনে করি, মৃত্যুর আগে পল্লীবন্ধু এরশাদ পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে যে সিদ্ধান্ত দিয়ে গেছেন সে বিষয়ে পার্টির নেতাকর্মী ও তার পরিবারের সদস্যরা শ্রদ্ধাশীল। এ সিদ্ধান্ত বলবৎ থাকলে এরশাদের আত্মাও শান্তি পাবে। পাশাপাশি আমাদের পল্লীমাতা রওশন এরশাদকেও যথাযথ সম্মান দিতে হবে। উভয়ের নেতৃত্বে দল আরো গতিশীল হবে। জিএম কাদের এরইমধ্যে যেভাবে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন আশা করি অচিরেই তৃণমূল আরো জাগ্রত হবে।

পার্টির যুগ্ম-মহাসচিব হাসিবুল ইসলাম জয় এ বিষয়ে বলেন, চেয়ারম্যান জিএম কাদেরকে মনে রাখতে হবে দলের বাইরেও সর্বমহলে স্বচ্ছ একটি অবস্থান রয়েছে তার। পরিবারের সবারই নেতা তিনি। সবার কাছে নিজের গ্রহণযোগ্যতা তাকেই ধরে রাখতে হবে। সবার শ্রদ্ধেয় রওশন এরশাদকে সম্মানের চেয়ারে রেখেই পার্টি এগিয়ে নিতে হবে।

সার্বিক বিষয়ে পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের বলেন, আমি আগেও বলেছি ভাবির (রওশন) সঙ্গে আমার কোনো বিরোধ নেই। উনি আমাকে ছোটবেলা থেকে সন্তানের মতো লালন পালন করেছেন। উনি আমার মাথার উপর বটগাছের ছায়ার মতো থাকবেন। উনি যেভাবে আমাকে দিক নির্দেশনা দেবেন পার্টি ঠিক সেভাবেই পরিচালিত হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এস