Alexa কোন দেশে কতটুকু সোনা মজুদ রয়েছে জানেন কি?

কোন দেশে কতটুকু সোনা মজুদ রয়েছে জানেন কি?

ফিচার ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১১:৪৭ ৯ আগস্ট ২০১৯  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

বিশ্বর বৃহত্তম বাণিজ্যিক উপাদান সোনা। এর মজুদের ওপর নির্ভর করে সে দেশের মূদ্রার মূল্য নির্ধারণ করা হয়। দেশের অর্থনৈতিক উন্নতি-অবনতিও এই সোনার ওপর নির্ভরশীল। 

সোনা মজুদের ক্ষেত্রে শীর্ষ দেশগুলোর একটি তালিকা প্রকাশ করেছে ফোর্বস ম্যাগাজিন। তালিকায় শীর্ষ আছে যুক্তরাষ্ট্র, আর দশম অবস্থানে রয়েছে ভারত। আসুন জেনে নিই কাদের সোনার পরিমাণ কতো? 

যুক্তরাষ্ট্র : সোনা মজুদের ক্ষেত্রে অনেক বছর ধরে বিশ্বব্যাপী সর্বোচ্চ অবস্থানে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। বর্তমানে দেশটির মোট ৮ হাজার ১৩৩ দশমিক ৫ টন সোনার মজুদ রয়েছে। তালিকার পরবর্তী তিন দেশের সোনার পরিমাণ যুক্তরাষ্ট্রের পরিমাণের প্রায় সমান।

জার্মানি : ইউরোপীয় দেশ হিসেবে সবচেয়ে বেশি সোনার মজুদ আছে জার্মানিতে। বিশ্বে দ্বিতীয়। দেশটির মোট সোনার মজুদ ৩ হাজার ৩৭১ টন। ২০১৭ সালে দেশটি ফ্রান্স ও যুক্তরাষ্ট্রের দু’টি ব্যাংক থেকে ৬৭৪ টন সোনা দেশে ফিরিয়ে এনেছে।

ইতালি : বহু বছর ধরে একই পরিমাণ সোনার মজুদ বজায় রেখেছে ইতালি। ফোর্বসের তালিকায় দেশটির অবস্থান তৃতীয়। বর্তমানে তাদের ২ হাজার ৪৫১ দশমিক ৮ টন সোনার মজুদ রয়েছে। ডলারের দর উত্থান-পতনের বিপরীতে নিজেদের অবস্থান ঠিক রাখার স্বার্থে মজুদ ধরে রাখার কথা বলে থাকে দেশটি।

ফ্রান্স : গত কয়েক বছরে কিছু পরিমাণ বিক্রির পরও সোনা মজুদে চতুর্থ স্থানে আছে ফ্রান্স। বর্তমানে ইউরোপীয় দেশটির সোনা মজুদের পরিমাণ মোট ২ হাজার ৪৩৬ টন।

রাশিয়া : গত ছয় বছর ধরে বিশ্বের সবচেয়ে বড় সোনার ক্রেতা রাশিয়ান সেন্ট্রাল ব্যাংক। মোট ১ হাজার ৯০৯ দশমিক ৮ টন সোনার মজুদ নিয়ে পঞ্চম অবস্থানে আছে দেশটি। ২০১৭ সালে ২২৪ টন সোনা কেনার কারণে চীনকে টপকে পঞ্চম স্থানে আসতে পেরেছে রাশিয়া।

চীন : দেশটিতে সোনার মজুদ আছে ১ হাজার ৮৪২ দশমিক ৬ টন। স্বর্ণ মজুদের ক্ষেত্রে পিপলস ব্যাংক অব চায়না ষষ্ঠ অবস্থানে থাকলেও তা দেশটির মোট রিজার্ভের মাত্র ২ দশমিক ৪ শতাংশ। বিশ্বব্যাপী কেন্দ্রীয় ব্যাংকগুলোর হিসাবে সোনা রিজার্ভে ব্যাংকটির অবস্থান ১০ম।

সুইজারল্যান্ড : ১ হাজার ৪০ টন সোনার মজুদ আছে সুইজারল্যান্ডের। মজুদের পরিমাণের বিচারে সপ্তম অবস্থানে থাকলেও মাথাপিছু মজুদের ক্ষেত্রে দেশটি এক নম্বরে আছে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় ইউরোপের সোনা বেচাকেনার প্রধান কেন্দ্র ছিল সুইজারল্যান্ড, একই সঙ্গে মিত্রশক্তি ও অক্ষশক্তি উভয়ের লেনদেন ছিল তাদের সঙ্গে।

জাপান : বিশ্বের তৃতীয় সর্বোচ্চ অর্থনীতির দেশ জাপানে সোনার মজুদ আছে ৭৫৬ দশমিক ২ টন। ২০১৬ সালে সোনা রিজার্ভে সুদের হার শূন্যতে নামিয়ে আনে দেশটি, যার ফলে বিশ্বব্যাপী সোনার আদান-প্রদান বেড়ে যায়।

নেদারল্যান্ডস : দেশটির প্রধান ব্যাংকে মজুদ আছে ৬১২ দশমিক ৫ টন সোনা। সম্প্রতি ব্যাংকটি বিপুল পরিমাণ সোনা যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফেরত এনেছে।

ভারত : ভারতীয়দের সোনার প্রীতি সর্বজনবিদিত। পৃথিবীতে সোনার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ভোক্তাও দক্ষিণ এশিয়ার দেশটি। বর্তমানে ৫৬০ দশমিক ৩ টন সোনার মজুদ আছে ভারতের।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএমএস

Best Electronics
Best Electronics