কুয়াকাটা ভ্রমণে থাকছে না বাধা

কুয়াকাটা ভ্রমণে থাকছে না বাধা

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১০:৫৩ ১ জুলাই ২০২০   আপডেট: ১৫:৩৭ ১ জুলাই ২০২০

কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকত

কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকত

সূর্যোদয় ও সূর্যাস্তের বেলাভূমি সমুদ্র সৈকত কুয়াকাটায় পর্যটকদের ভ্রমণে আর কোনো বাধা থাকছে না। টানা ১০০ দিন লকডাউন কাটিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনেই আজ বুধবার থেকে খুলেছে এখানকার সব হোটেল-মোটেল। এতে অর্থনীতির চাকা সচল হবে বলে ধারণা সংশ্লিষ্টদের। এছাড়া পর্যটকদের পদচারণায় মুখর হয়ে উঠবে ১৮ কিলোমিটারের এ সমুদ্র সৈকত।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে ১৮ মার্চ কুয়াকাটায় পর্যটকদের ভ্রমণের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে জেলা প্রশাসন। ওই সময় কুয়াকাটায় আটকা পড়া পর্যটকরা দ্রুত যার যার গন্তব্যে চলে যান। এরপরই কুয়াকাটার পর্যটনকেন্দ্রিক সব ব্যবসা-বাণিজ্য বন্ধ হয়ে যায়।

২৫ জুন কুয়াকাটা হোটেল-মোটেল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন জেলা প্রশাসনের কাছে পর্যটননির্ভর ব্যবসা প্রতিষ্ঠান চালু করার অনুমতি চায়। পরে আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ১ জুলাই থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চালু রাখার অনুমতি দেয় জেলা প্রশাসন।

এর আগে ৫, ৬ ও ৯ জুন করোনাকালীন হোটেল-মোটেল ব্যবস্থাপনা ও পর্যটকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য কর্মীদের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। কুয়াকাটা হোটেল-মোটেল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সহযোগিতায় বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড এর আয়োজন করে। খাবার হোটেল মালিক-কর্মচারী, ভ্যান-অটোচালক, ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেল চালকরাও এ প্রশিক্ষণের আওতায় ছিলেন।

কুয়াকাটার হোটেল সমুদ্রবাড়ির পরিচালক জহিরুল ইসলাম মিরন বলেন, একজন পর্যটক গাড়িসহ এলে প্রথমে নির্দিষ্ট পোশাকে সজ্জিত হোটেল কর্মীরা গাড়িসহ মালামাল জীবাণুনাশক স্প্রে করে নেবেন। এরপর পর্যটক নির্ধারিত কক্ষে যাওয়ার আগে হাত-পা ধুয়ে যাবেন। স্বাস্থ্যবিধি অনুসারে হোটেলের প্রতিটি কক্ষ ব্যবহার উপযোগী করা থাকবে।

ইলিশ পার্ক ইকো রিসোর্টের মালিক রুমান ইমতিয়াজ তুষার বলেন, দীর্ঘদিন এ করোনা থাকবে। এ বিষয়টি মাথায় রেখেই আবাসিক হোটেল-মোটেলসহ পর্যটনমুখী ব্যবসায়ীদের ব্যবসা চালাতে হবে। তবে অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

কুয়াকাটা আবাসিক হোটেল-মোটেল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মোতালেব শরীফ জানান, স্বাস্থ্যবিধি মেনে ১৪টি শর্ত সাপেক্ষে ১ জুলাই থেকে আবাসিক হোটেল-মোটেল, রেস্তোরাঁ খোলার নির্দেশ দিয়েছেন। আবাসিক হোটেল মালিকরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে পর্যটক রাখছে কিনা জেলা প্রশাসন ও হোটেল-মোটেল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন যৌথভাবে পর্যবেক্ষণ করবে।

কলাপাড়ার ইউএনও আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহিদুল হক বলেন, করোনাকালে স্বাস্থ্যবিধি মেনে হোটেল ব্যবস্থাপনা করতে বলা হয়েছে। এর ব্যত্যয় ঘটলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর/টিআরএইচ/আরআর