Alexa কিডনি দিচ্ছেন বাবা, টাকার অভাবে হচ্ছে না প্রতিস্থাপন

কিডনি দিচ্ছেন বাবা, টাকার অভাবে হচ্ছে না প্রতিস্থাপন

নেত্রকোনা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৯:২৮ ২০ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ১৯:৩৫ ২০ অক্টোবর ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

জীবনমৃত্যুর সন্ধিক্ষণে বাঁচার আশা নিয়ে নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলার এমদাদুল হক এখন দিশেহারা। ২০১৮ সাল থেকে তিনি কিডনি সমস্যায় ভুগছেন। এমদাদুল হক ২০১৭ সালে টঙ্গী সরকারি কলেজ থেকে পলিটিক্যাল সায়েন্স নিয়ে মাস্টার্স পাশ করেছেন। 

কর্মজীবনে ঢোকার স্বপ্ন নিমিষেই শেষ হয়ে গেল তার। ভালো একটি চাকরির অপেক্ষা করছিলেন এসময় জানতে পারেন তার দু’টি কিডনির ৯৫ শতাংশ অকার্যকর হয়ে গেছে।

ছেলেকে বাঁচাতে একটি কিডনি দিতে প্রস্তুত রয়েছেন তার বৃদ্ধ বাবা তাহের আলী। কিন্তু টাকার অভাবে এমদাদুলের নতুন কিডনি প্রতিস্থাপন করানোও সম্ভব হচ্ছে না।

এমদাদুলের বাবা তাহের আলী জানান, অপারেশনের জন্য সাড়ে তিন লাখ টাকা প্রয়োজন। যা যোগান দেয়া তাদের পক্ষে সম্ভব নয়। যা সম্বল ছিল এক বছরে চিকিৎসা করে তাও শেষ হয়ে গেছে। প্রতি সপ্তাহে দুইবার করে ডায়ালাইসিস করাতে হয়। যার জন্য সবমিলিয়ে খরচ হয় প্রায় ১০ হাজার টাকা। এছাড়াও অন্যান্য ওষুধের পাশাপাশি ‘সি’ভাইরাসের জন্য এক হাজার টাকা দামের একটি ট্যাবলেট খেতে হয় প্রতিদিন।

এমদাদুল জেলার দুর্গাপুরের চন্ডিগড় ইউপির তেলাছিয়া গ্রামের বাসিন্দা। ইমদাদ বাঁচতে চায়। এ অবস্থায় তাকে বাঁচাতে সমাজের বিত্তবানদের কাছে সাহায্য কামনা করেছেন তার বাবা তাহের আলী।  

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে