Alexa কলায় রঙিন জীবন

কলায় রঙিন জীবন

আব্দুর রাজ্জাক, ঘিওর ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:১২ ৯ অক্টোবর ২০১৯  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

‘কলা রুয়ে না কেটো পাত, তাতেই কাপড় তাতেই ভাত’ এই প্রবাদ বাক্যকে সফলতায় রূপ দিয়েছেন মানিকগঞ্জের ঘিওরের তিন যুবক। তাদের উদ্যোগে বাণিজ্যিকভাবে কলা চাষে এলাকাবাসীর মাঝে বেশ সাড়া ফেলেছে। অল্প বিনিয়োগে লাভবান হওয়ার পাশাপাশি, তারা বেকার যুবকদের কর্মসংস্থানও করেছেন।

উপজেলার মাইলাগী গ্রামে বিষমুক্ত কলা চাষ করেন মো. রাসেল মিয়া, রিপন মিয়া, ও মো. শরিফ। তারা তিন একর জায়গায় সাগর জাতের কলা আবাদ করেছেন। তাদের বাগানের উৎপাদিত কলা জেলার বিভিন্ন হাট-বাজারসহ রাজধানীর ব্যবসায়ীরা পাইকারিতে কেনেন।

আর্থিকভাবে লাভবান হওয়ায় তাদের দেখাদেখি উপজেলার বিভিন্ন স্থানে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে কলার চাষ। মাইলাগী এলাকার অনেক পরিবার কেবল কলা চাষ করেই ঘুচিয়েছেন দারিদ্রতা। এ এলাকার প্রতিটি বাড়িতেই রয়েছে কলা গাছ। বাড়ির উঠান, আঙিনা যেখানেই ফাঁকা জায়গা, সেখানেই কলা গাছ লাগানো হয়েছে। কলা চাষের বিস্তৃতি আর সাফল্যে মাইলাগী গ্রাম এখন পরিচিত ‘কলার গ্রাম’ নামে। কলা পাল্টে দিয়েছে এ অঞ্চলের অর্থনৈতিক দৃশ্যপট। 

রাসেল, রিপন ও শরিফ বলেন, নভেম্বর মাসে কলার চারা রোপণ করা হয়েছে। ছয় মাস ধরে চারাগুলো টিএসপি, এমওপি, ইউরিয়া, সালফার, জিংক, বোরন সার ব্যবহার করে কলার কাঁদি বের হয়। নয় মাসে বাজারজাত করা হচ্ছে। এ পর্যন্ত আমাদের খরচ হয়েছে চার লাখ টাকা। বিক্রি হয়েছে ৪ লাখ ২০ হাজার টাকা। এখন পর্যন্ত যে কলা রয়েছে তা আরো ৪ লাখ বিক্রি হবে। অন্য যেকোনো ফসলের চেয়ে অনেক বেশি লাভ হয় কলা চাষে।

তারা আরো বলেন, কলা চারা রোপণ থেকে আহরণ পর্যন্ত বিভিন্ন রোগ বালাইয়ের আক্রমণের শিকার হয়। এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি অফিস থেকে কোনো সহায়তা পেলে আরো ভালো করা যেত।

জেলা কৃষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. নজরুল ইসলাম জানান, প্রতি শতকে কলার চারা বপন করা যায় ৬০টি। প্রতিটি কলা গাছে ৭০ থেকে ৮০ টাকা খরচ হয়। এক বিঘা জমিতে কলা চাষ করতে ১৫-২০ হাজার টাকা খরচ পড়লেও তা থেকে বিক্রি হয় ৮০ হাজার থেকে এক লাখ টাকা। যা অন্য কোনো ফসলে সম্ভব নয়।

তিনি কলা চাষের সঙ্গে জড়িত কৃষকদের সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে প্রশিক্ষণ, ঋণ প্রদান ও কৃষি কর্মকর্তাদের সহায়তা নিশ্চিতের দাবি জানান।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শেখ বিপুল হোসেন বলেন, ওই তিন যুবকের সাফল্য দেখে অনেকেই এখন বাণিজ্যিকভাবে কলা চাষে ঝুঁকছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর