করোনা পজিটিভ নিয়ে চিকিৎসা, পুরো হাসপাতাল বন্ধ

করোনা পজিটিভ নিয়ে চিকিৎসা, পুরো হাসপাতাল বন্ধ

পটুয়াখালী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৮:৪৭ ৪ জুলাই ২০২০   আপডেট: ১৯:২০ ৪ জুলাই ২০২০

করোনা নিয়ে রোগী দেখছেন ডা. মাহমুদুর রহমান

করোনা নিয়ে রোগী দেখছেন ডা. মাহমুদুর রহমান

করোনা পজিটিভ হওয়ার পরও পটুয়াখালী শহরের নোভা ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ব্যক্তিগত চেম্বারে রোগী দেখছিলেন ডা. মাহমুদুর রহমান। এ ঘটনায় চিকিৎসকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়াসহ হাসপাতালটি অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দিয়েছে প্রশাসন।

শনিবার দুপুরে সদরের ইউএনও লতিফা জান্নাতী ও সদর থানার ওসি আক্তার মোর্শেদ উপস্থিত হয়ে ওই ডায়াগনস্টিক সেন্টারটি তালা লাগিয়ে দেন। ডা. মাহমুদুর রহমান পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজের সাবেক অধ্যাপক ও গাইনি বিশেষজ্ঞ।

ইউএনও লতিফা জান্নাতী জানান, করোনা পজিটিভ হওয়ার পরও ব্যক্তিগত চেম্বারে রোগী দেখছিলেন ডা. মাহমুদুর রহমান। এর পরিপ্রেক্ষিতে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়া স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে বলায় অনির্দিষ্টকালের জন্য নোভা ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে লকডাউন করা হয়েছে।

এর আগে এ ঘটনার একটি ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। যা নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়েছে। ভিডিওতে দেখা গেছে, পটুয়াখালী শহরের নোভা ডায়াগনস্টিক সেন্টারে রোগী দেখছেন স্ত্রীরোগ ও প্রসূতি বিশেষজ্ঞ ডা. মাহমুদুর রহমান। করোনা পজিটিভ রিপোর্ট পাওয়ার বেশ কয়েক ঘণ্টা পরও চেম্বারে থাকেন তিনি। এ সময় বেশ কয়েকজন রোগীও তার চেম্বারে অপেক্ষমাণ ছিলেন।

পটুয়াখালী সিভিল সার্জন কার্যালয়ের তথ্যমতে, শুক্রবার সকালে ডা. মাহমুদুর রহমানের করোনা পজিটিভ আসে। এ সময় তাকে জেলা সিভিল সার্জন ফোন করে বিষয়টি জানান। একইসঙ্গে আইসোলেশনে থাকার পরামর্শ দেয়া হয়।

বিষয়টি কোনো গুরুত্ব না দিয়েই বিকেলে নোভা ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ব্যক্তিগত চেম্বারে রোগী দেখেন এ চিকিৎসক। খবরটি জানতে পেরে রোগীরা চেম্বার থেকে চলে যান। পরে ডা. মাহবুবুর রহমান সংবাদিকাদের তোপের মুখে পড়ে চেম্বার ছেড়ে বাসায় চলে যান।

এরইমধ্যে যেসব রোগী এ চিকিৎসককে দেখিয়েছেন। তাদের মাঝে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। তারা জানান, একজন সচেতন নাগরিক হয়ে কীভাবে করোনা নিয়ে রোগী দেখলেন।

প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক মো. মতিন বলেন, বিষয়টি জেনেছি। এরইমধ্যে হাসপাতালটি লকডাউন করেছে প্রশাসন।

পটুয়াখালী জেলা সচেতন নাগরিক কমিটির সদস্য মো. মোতালেব মোল্লা বলেন, একজন সচেতন মানুষ হয়ে এটি ওই চিকিৎসকের করা ঠিক হয়নি। তার বিরুদ্ধে সরকারিভাবে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর