ওসি প্রদীপসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা, তদন্তে র‍্যাব

অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা নিহতের ঘটনায়

ওসি প্রদীপসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা, তদন্তে র‍্যাব

কক্সবাজার প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৭:৪৭ ৫ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ২০:৩৩ ৫ আগস্ট ২০২০

কক্সবাজারের ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেছেন রাশেদের বোন শারমিন শাহরিয়ার। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

কক্সবাজারের ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেছেন রাশেদের বোন শারমিন শাহরিয়ার। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

পুলিশের গুলিতে সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান নিহতের ঘটনায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও বাহারছড়া তল্লাশি চৌকির ইনচার্জ লিয়াকত আলীসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে এই মামলা দায়ের করেছেন রাশেদের বোন শারমিন শাহরিয়ার। বুধবার কক্সবাজারের ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এই হত্যা মামলা দায়ের করেন তিনি। এরই মধ্যে, র‍্যাবকে এ মামলা তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। 

গত ৩১ জুলাই রাতে টেকনাফের মেরিন ড্রাইভ সড়কের শামলাপুর ইউপির বাহারছড়া তল্লাশি চৌকিতে সাবেক মেজর সিনহা রাশেদ খান পুলিশের গুলিতে নিহত হন। এ ঘটনায় পুলিশের দেয়া বিবরণ নিয়ে প্রশ্ন ওঠায় চট্টগ্রাম বিভাগের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ মিজানুর রহমানকে আহ্বায়ক করে চার সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়। কমিটিকে সরেজমিনে তদন্ত করে ঘটনার কারণ অনুসন্ধান এবং ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনা প্রতিরোধে করণীয় সম্পর্কে মতামত দেয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। ঘটনা তদন্তে গতকাল মঙ্গলবার হতেই মাঠে নেমেছে তদন্ত কমিটি। এছাড়াও ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্ট পুলিশ সদস্যদের প্রত্যাহার করা হয়েছে বলে জানা যায়।

‘জাস্ট গো’ নামে একটি ইউটিউব চ্যানেলের ট্রাভেল ভিডিও নির্মাণের উদ্দেশে গত ৩ জুলাই ঢাকা থেকে কক্সবাজার যান সিনহা রাশেদ। তার সঙ্গে ছিলেন স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটির ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়া বিভাগের তিন শিক্ষার্থী। মেরিন ড্রাইভ সড়কের হিমছড়ি ঝরনা এলাকার নীলিমা রিসোর্টে ওঠেন তারা। এক মাস ধরে তারা কক্সবাজারের বিভিন্ন স্থানে শুটিং করেন।

জানা যায়, ৩১ জুলাই বিকেলে সিনহা ও সিফাত শুটিংয়ের উদ্দেশ্যে প্রাইভেটকার নিয়ে বেরিয়ে যান। শুটিং শেষে ফেরার পথে সিনহার গাড়িটি প্রথমে বিজিবির একটি চেকপোস্টে থামে। পরিচয় পাওয়ার পর বিজিবি সদস্যরা তাদের ছেড়ে দেন। অতঃপর রাত ৯টার দিকে সিনহা রাশেদের প্রাইভেট কার মেরিন ড্রাইভ সড়ক দিয়ে টেকনাফের বাহারছড়া ইউপির শামলাপুর পুলিশ চেকপোস্টে পৌঁছালে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর লিয়াকত আলী গাড়িটিকে থামান। এখানেই ইনস্পেক্টর লিয়াকত আলীর গুলিতে নিহত হন মেজর সিনহা। 
 
উল্লেখ্য যে, সিনহা রাশেদের পিতা মুক্তিযোদ্ধা এরশাদ খান অর্থ মন্ত্রণালয়ের উপসচিব ছিলেন। ২০১৮ সালে মেজর সিনহা রাশেদ স্বেচ্ছায় সেনাবাহিনী হতে অবসর গ্রহন করেন। চাকুরীতে থাকাকালে তিনি প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তায় নিয়োজিত স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্সেও (এসএসএফ) নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন।

নিহত সাবেক সেনা কর্মকর্তা (মেজর) সিনহা মো. রাশেদ খানের মা নাসিমা আক্তারকে ফোন করে সমবেদনা ও সান্ত্বনা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। প্রধানমন্ত্রী নিহতের পরিবারকে সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচারের আশ্বাস দিয়েছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিআরএইচ