মাথা ন্যাড়া, দাড়ি কেটেও শেষ রক্ষা হলো না বাবা-ছেলের

শিহাব হত্যা

মাথা ন্যাড়া, দাড়ি কেটেও শেষ রক্ষা হলো না বাবা-ছেলের

আদমদীঘি (বগুড়া) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৮:৫৯ ৯ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১৯:১৭ ৯ আগস্ট ২০২০

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

মাথা ন্যাড়া, দাড়ি কেটে আত্মগোপন করেও শেষ রক্ষা হলো না বগুড়ার আদমদীঘির আলোচিত এসএসসি পরীক্ষার্থী শিহাব হোসেন হত্যা মামলার আসামি শিপলু ও তার বাবার।

সিহাব হত্যা মামলার প্রধান আসামি শিপলু ও তার বাবাকে ময়মনসিংহ থেকে গ্রেফতারের পর বগুড়ার আদমদীঘি থানায় নেয়া হয়েছে।

রোববার সকালে গ্রেফতার শিপলু হোসেনের দেয়া তথ্যমতে রক্তদহ বিলের বেইলি ব্রিজের কচুরিপানার ভেতর থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহার করা ছুরি, রক্ত মাখা গেঞ্জি ও স্যান্ডেল উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আদমদীঘি থানার ওসি (তদন্ত) আব্দুর রাজ্জাক জানান, উদ্ধার করা ধারালো চাকু আলামত হিসেবে জব্দ করে দুপুরে আসামিদের আদালতে পাঠানো হয়েছে। 

গত ১ আগস্ট বিকেলে আদমদীঘির রক্তদহ বিলের পাড়ে দক্ষিণ গনিপুর ও দমদমা গ্রামের তরুণদের মাঝে বাকবিতণ্ডা ও মারপিটের ঘটনা ঘটে। এরই জেরে ২ আগস্ট রোববার সন্ধ্যায় শিহাব ও তার দুই বন্ধু মিলে রক্তদহ বিল এলাকার বেড়াতে যায়। এ সময় দক্ষিণ গনিপুর গ্রামের এখলাছের ছেলে শিপলু হোসেন পূর্ব শক্রতায় স্কুলছাত্র শিহাবের গলায় ও তার বন্ধুদের ছুরিকাঘাতে জখম করে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা আহত শিহাবসহ তিনজনকে উদ্ধার করে নওগাঁ সদর হাসপাতালে নেয়া হলে সেখানে শিহাব মারা যায়। 

এই ঘটনায় গত ৩ আগস্ট রাতে নিহতের বাবা হারুন অর রশিদ বাদী হয়ে শিপুল ও তার বাবাসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন। হত্যার ছয়দিন পর গত শনিবার সকালে আদমদীঘি থানা পুলিশ শিপলু হোসেন ও তার বাবা এখলাছ উদ্দিনকে ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জের মধুপুর এলাকা থেকে গ্রেফতার করেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে