Alexa এবার মেট্রোরেলে টাকা সাশ্রয় করলো জাপানি কোম্পানি

এবার মেট্রোরেলে টাকা সাশ্রয় করলো জাপানি কোম্পানি

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০৯:৪০ ২৩ জানুয়ারি ২০২০   আপডেট: ০৯:৪৯ ২৩ জানুয়ারি ২০২০

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

রাজধানীর বুকে সড়কজুড়ে দৃশ্যমান হচ্ছে স্বপ্নের মেট্রোরেল। ৮টি প্যাকেজে বাস্তবায়িত হচ্ছে এই প্রকল্প। প্যাকেজ-১ এর আওতায় মেট্রোরেলের ডিপো এলাকায় ভূমি উন্নয়নের কাজ এরইমধ্যে শতভাগ শেষ হয়েছে। আর এ কাজে মোট ব্যয় হওয়ার কথা ছিল ৫৮০ কোটি ৬০ লাখ টাকা। এর মধ্যে ৭০ কোটি ৫৮ লাখ টাকা সাশ্রয় করে নতুন নজির তৈরি করেছে জাপানের টোকিও কনস্ট্রাকশন কোম্পানি। 

এর আগেও টাকা ফেরত দিয়ে নজির সৃষ্টি করেছিল জাপানি কোম্পানি। ২য় মেঘনা ও ২য় গোমতী সেতু নির্মাণ এবং বিদ্যমান সেতু পুনর্বাসন প্রকল্পেও টাকা সাশ্রয় করে ফেরত দিয়ে তারা মহানুভবতার পরিচয় দেয়। প্রকল্পগুলো যেমন নির্ধারিত সময়ের ৬ মাসের বেশি সময় আগে শেষ করেছিল, তেমনি প্রকল্প দুটির বরাদ্দ থেকে প্রায় এক হাজার কোটি টাকা সাশ্রয় করে সরকারকে ফেরতও দিয়েছিল।

একইভাবে জাপানি কোম্পানি মেট্রোরেলে সাশ্রয় হওয়া টাকা প্রকল্প সংশ্লিষ্টদের দিয়ে দেবেন। যা দিয়ে নির্মিত হবে মেট্রোরেলের বাড়তি রুট। মতিঝিল থেকে কমলাপুর পর্যন্ত মেট্রোরেলের দৈর্ঘ্য ১ দশমিক ১৬ কিলোমিটার বাড়ছে। এ কাজে ১ হাজার ৫০৫ কোটি টাকা বাড়তি ব্যয় হতে পারে। জাপানি কোম্পানির সাশ্রয় হওয়া টাকা মেট্রোরেলের বাড়তি রুটে ব্যয় করা হবে। একটি মাত্র প্যাকেজের আওতায় ৭০ কোটি ৫৮ লাখ টাকা সাশ্রয় হয়েছে। মেট্রোরেল মোট ৮টি প্যাকেজে বাস্তবায়িত হচ্ছে। অন্যান্য প্যাকেজেও টাকা সাশ্রয় হতে পারে। 

এই সাশ্রয় হওয়া টাকা দিয়ে বাড়তি রুট নির্মিত হয়ে যাবে। তাই মতিঝিল থেকে কমলাপুর রুট নির্মাণের জন্য নতুন করে প্রকল্পের আওতায় ব্যয় বৃদ্ধির কোনো সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছে মেট্রোরেল প্রকল্পের বাস্তবায়নকারী সংস্থা ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল)।

উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত ২০ দশমিক ১ কিলোমিটার মেট্রোরেলের কাজ চলমান। এর সঙ্গে আরো ১ দশমিক ১৬ কিলোমিটার বাড়তি রুট যুক্ত হবে। ফলে মেট্রোরেলের মোট দৈর্ঘ্য দাঁড়াচ্ছে ২১ দশমিক ২১ কিলোমিটার।

ডিএমটিসিএল সূত্রে জানা গেছে, মেট্রোরেলের নির্মাণকাজের সার্বিক অগ্রগতি ৪০ দশমিক ০২ শতাংশ প্রথম পর্যায়ে নির্ধারণের জন্য উত্তরা তৃতীয় ফেইজ থেকে আগারগাঁও পযর্ন্ত অগ্রগতি ৬৬ দশমিক ৮৫ শতাংশ। দ্বিতীয় পর্যায়ে নির্মাণের জন্য নির্ধারিত আগারগাঁও থেকে মতিঝিল অংশের পূর্ত কাজের অগ্রগতি ৩৫ দশমিক ২৮ শতাংশ। ইলেকট্রিক্যাল সিস্টেম এবং রোলিং স্টক (রেল কোচ) ও ডিপো ইকুইপমেন্ট সংগ্রহ কাজের সমন্বিত অগ্রগতি ২৫ দশমিক ২৫ শতাংশ।

ঢাকার যানজট নিরসন ও নগরবাসীর যাতায়াত আরামদায়ক, দ্রুততর ও নির্বিঘ্ন করতে ২০১২ সালে গৃহীত হয় মেট্রোরেল প্রকল্প। এই এলাকায় বসবাসকারী লাখো নগরবাসী মেট্রোরেল ব্যবহার করে গন্তব্যে যাতায়াত করতে পারবেন। প্রকল্পে ২৪ সেট ট্রেন চলাচল করবে। প্রত্যেকটি ট্রেনে থাকবে ৬টি করে কার। যাত্রী নিয়ে ঘণ্টায় ১শ' কিলোমিটার বেগে ছুটবে এ ট্রেন। উভয়দিক থেকে ঘণ্টায় ৬০ হাজার যাত্রী বহনে সক্ষমতা থাকবে মেট্রোরেলের।

গত ৬ জানুয়ারি তৃতীয় মেয়াদের সরকার গঠনের এক বছর পূর্ণ করেছে আওয়ামী লীগ। বিভিন্ন খাতে গত বছর অর্জনের খাতায় সাফল্য যোগ হয়েছে ব্যাপক। এর মধ্যে পদ্মাসেতু, মেট্রোরেলসহ মেগা প্রকল্পগুলোর কাজে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে। নানামুখী উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের পাশাপাশি দুর্নীতি, মাদক ও ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান সরকারের ভাবমূর্তিকে নিয়ে গেছে অন্য উচ্চতায়। এছাড়া সড়ক পরিবহন আইন বাস্তবায়ন, ব্যবসা-বাণিজ্যে গতি আনতে ব্যাংক ঋণের সুদহার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনার উদ্যোগও ছিল প্রশংসনীয়।

২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনে জয়ের মধ্য দিয়ে টানা তৃতীয়বারের মতো সরকার গঠন করে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন জোট সরকার। গত বছরের ৭ জানুয়ারি শপথ নেন নতুন এমপি-মন্ত্রীরা। এরপর জনগণের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে গৃহীত প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নে পদক্ষেপ গ্রহণ করে সরকার।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিআরএইচ