এফবিআই তদন্তে লেবাননকে প্রতিশ্রুতি পূরণের আহ্বান

এফবিআই তদন্তে লেবাননকে প্রতিশ্রুতি পূরণের আহ্বান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৫:৫৯ ১৪ আগস্ট ২০২০  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

গত ৪ আগস্ট বৈরুত বন্দরে ভয়াবহ বিস্ফোরণ বদলে দিয়েছে শত শত মানুষের জীবন। এ ঘটনায় নিহত হয়েছে অন্তত ১৭২ জন ও আহত হয়েছে ছয় হাজারের বেশি মানুষ। এছাড়া এক লাখের বেশি শিশুসহ মোট তিন লাখ মানুষ ঘরবাড়ি ছাড়া হয়েছেন। বিস্ফোরণে ধ্বংসস্তুপে পরিণত হওয়া নগরী বৈরুত পরিদর্শনকালে তদন্তের ব্যাপারে লেবাননের দেয়া প্রতিশ্রুতি পূরণের আহ্বান জানান মার্কিন রাজনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ডেভিড হেল।

বৃহস্পতিবার মার্কিন ওই কূটনীতিক বলেন, লেবাননে অর্থনৈতিক, রাজস্ব সংস্কার ও অকার্যকর শাসনের অবসান দরকার। সেই সঙ্গে বিস্ফোরণে এফবিআই এর তদন্তের ব্যাপারে তাদের দেয়া প্রতিশ্রুতি পূরণের প্রয়োজন। লেবানন আমন্ত্রণ করলে শীঘ্রই এফবিআই আন্তর্জাতিক তদন্তকারীদের সঙ্গে মিলে এই বিস্ফোরণ সম্পর্কে প্রশ্নের জবাব দিতে সহায়তা করবে।

তবে দেশটির প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন বিস্ফোরণের ঘটনায় আন্তর্জাতিক তদন্তের দাবি প্রত্যাখান করেন। তিনি বলেন, ক্ষেপণাস্ত্র হামলা অথবা অবহেলা এই বিস্ফোরণের কারণ হতে পারে।

দেশটির তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আইন ও বিচার মন্ত্রী মেরি ক্লড নাজেম বলেন, লেবাননের বিচার বিভাগই তদন্ত করার জন্য যথেষ্ট। জনগণের চাপ ও আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরের কারণে সম্ভবত তদন্ত সঠিকভাবে এগিয়ে যাবে।

বৈরুত বিস্ফোরণের ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটিগুলো প্রাথমিক তদন্ত শেষে জানা গেছে, বিস্ফোরণে এক হাজার পাঁচশ’ কোটি ডলারের আর্থিক ক্ষতি হয়েছে।

এদিকে ওই বিস্ফোরণের ফলে লেবাননের রাজনৈতিক অঙ্গনেরও মারাত্মক ক্ষতি হয়েছে। তিনদিন আগে প্রধানমন্ত্রী হাসান দিয়াবের নেতৃত্বাধীন সরকার পদত্যাগ করেছে। রাজধানী বৈরুতসহ দেশের ভিন্ন স্থানে সরকার বিরোধী বিক্ষোভের জের ধরে দিয়াবের মন্ত্রিসভা পদত্যাগ করে। প্রেসিডেন্ট মিশের আউন অবশ্য পরবর্তী সরকার গঠিত না হওয়ার পর্যন্ত হাসান দিয়াবকে দায়িত্ব পালন করে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, বিস্ফোরণের কারণ শতভাগ নিশ্চিত না হলেও ধারণা করা হচ্ছে বন্দরের গুদামে অরক্ষিত ২ হাজার ৭৫০ টন অ্যামোনিয়াম নাইট্রেটকে দায়ী করা হচ্ছে। যা সার ও বোমা তৈরির কাজে ব্যবহৃত হয়।

সূত্র: রয়টার্স

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএএইচ