উ. কোরিয়ার শহরে লকডাউন প্রত্যাহার করলেন কিম

উ. কোরিয়ার শহরে লকডাউন প্রত্যাহার করলেন কিম

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২০:১৪ ১৪ আগস্ট ২০২০  

কিম জং উন

কিম জং উন

দক্ষিণ কোরিয়ার সীমান্তের নিকটে অবস্থিত একটি বড় শহর থেকে লকডাউন প্রত্যাহার করেছেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন। করোনাভাইরাস নিয়ে উদ্বেগের কারণে গত কয়েক সপ্তাহ ধরে সেখানে কয়েক হাজার মানুষ আইসোলেশনে ছিলেন।

বৃহস্পতিবার গভর্নিং পার্টির একটি বৈঠককালে এ সিদ্ধান্তের কথা জানান তিনি।

বৈঠকে কিম জোর দিয়ে বলেন, উত্তর কোরিয়া তার সীমান্ত বন্ধ রাখবে। এছাড়া যেকোনো ধরণের বিদেশি সহায়তাও প্রত্যাখ্যান করবে দেশটি। ভারী বৃষ্টিপাত এবং বন্যার ফলে দেশটির কয়েক হাজার ঘরবাড়ি, রাস্তা ও সেতু ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। তবে সেগুলোর পুননির্মাণের কাজ শুরু করেছে দেশটি। এছাড়া সম্প্রতি করোনাভাইরাস নিয়েও ক্যাম্পেইন চালু করেছে উত্তর কোরিয়া। তবে এসব কাজে কোনো বিদেশি মানবিক সহায়তা নিতে ইচ্ছুক না দেশটি।

দেশটির রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা কেসিএনএ জানিয়েছে, কিম বলেছেন তিন সপ্তাহের আইসোলেশন ব্যবস্থা শেষে বৈজ্ঞানিক যাচাইকরণে এটি স্পষ্ট হয়ে গেছে যে, কাসং-এ ভাইরাসের পরিস্থিতি এখন স্থিতিশীল। লকডাউন চলাকালীন সময়ে সহযোগিতা করার জন্য শহরটির বাসিন্দাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন তিনি।

কিম বলেন, তার দেশ এখন দুইটি চ্যালেঞ্জের মোকাবিলা করছে। বিশ্বব্যাপী ক্রমবর্ধমান মহামারি করোনাভাইরাস ও গত কয়েক সপ্তাহের মুষলধারে বৃষ্টিপাতের ফলে সৃষ্ট ক্ষয়ক্ষতির।

কেসিএনএ জানিয়েছে, বৃষ্টিপাত ও বন্যার ফলে উত্তর কোরিয়ার ৩৯ হাজার ২৯6 হেক্টর জমির ফসল ধ্বংস হয়েছে। এছাড়া ১৬ হাজার ৬৮০টি ঘরবাড়ি ও ৬৩০টি সরকারি ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

বন্যার কারণে ঘরবাড়ি হারিয়ে অস্থায়ী স্থানে আশ্রয় নেয়া মানুষদের প্রতি সহানুভূতি প্রকাশ করেছেন কিম। আগামী ১০ অক্টোবর দেশটির ক্ষমতাসীন ওয়ার্কার্স পার্টির ৭৫ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। তাই যত দ্রুত সম্ভব সবকিছু সংস্কার করার জন্য প্রচেষ্টা চালানোর আহ্বান জানান তিনি যাতে ওই দিনটি উদযাপনের সময় কেউ যেন গৃহহীন না থাকে।

সূত্র- আল জাজিরা

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএমএফ