উৎসবমুখর বাড়ি মুহূর্তেই মৃত্যুপুরী, ২৫ শিশু-নারীকে খুন

উৎসবমুখর বাড়ি মুহূর্তেই মৃত্যুপুরী, ২৫ শিশু-নারীকে খুন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৮:৫৫ ১৭ জুলাই ২০২০   আপডেট: ১৯:১৭ ১৭ জুলাই ২০২০

সৌদি জোটের হামলায় বেঁচে যাওয়া এক শিশুর চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

সৌদি জোটের হামলায় বেঁচে যাওয়া এক শিশুর চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

বাড়িতে জন্ম নিয়েছিল নবজাতক। সেই নবজাতককে দেখতে  জমায়েত হন  স্বজন ও প্রতিবেশীরা। আর উঠানে খেলায় মেতেছিল ছোট শিশুরা। বাড়িতে চলছিল ভরপুর আনন্দ-উৎসব। সেই উৎসবের মাঝে বাড়িটিতে বোমা হামলা করল সৌদি জোট। মুহূর্তেই বাড়িটির উৎসব মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়। একে একে মিলল ২৫ নারী ও শিশুর লাশ।

বুধবার ইয়েমেনের আল-জাউফ এলাকায় মর্মান্তিক বোমা হামলাটি ঘটে।

স্থানীয় আহমেদ শাওয়া বলেন, নতুন শিশুর জন্মের খবর পেয়ে প্রতিবেশীরা মোহাম্মদ মাকবুতের বাড়ির ভেতরে জড়ো হন। সেখানে শিশুরা খেলায় মগ্ন ছিল। আর কিছু লোক বাড়ির সামনে কফি পান করছিলেন। যখন বাড়ির ভেতরে ও বাইরে লোক জমায়েত হয় তখন বোমা হামলা করে সৌদি জোট। এতে ২৫ নারী ও শিশু মারা গেছে। এর মধ্যে সাতজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

এদিকে বোমা হামলা চালিয়ে নিরীহ মানুষকে হত্যার নিন্দা জানিয়েছে ইরান। দেশটি বলেছে, আন্তর্জাতিক সমাজের নীরবতার সুযোগে সৌদি আররের নেতৃত্বে ইয়েমেনে যুদ্ধাপরাধ চলছে।

দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাইয়্যেদ আব্বাস মুসাভি ইয়েমেনিদের জীবন রক্ষায় এগিয়ে আসতে আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ইয়েমেনের নিরীহ মানুষকে হত্যার জন্য যারা সৌদি জোটকে অস্ত্র ও বোমা দিচ্ছে তারাও সমান অপরাধী।

তিনি আরো বলেন, সৌদি জোট ইয়েমেনে নির্বিচারে শিশুদের খুনের ঘটনা অব্যাহত রাখলেও রাজনৈতিক চাপ ও অর্থের কাছে নতিস্বীকার করেছে জাতিসংঘ। শিশু ঘাতক দেশগুলোর তালিকা থেকে সৌদি আরবের নাম বাদ দিয়েছে আন্তর্জাতিক এ সংগঠনটি।

২০১৫ সালের মার্চ থেকে ইয়েমেনে আগ্রাসন শুরু করে সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ কয়েকটি দেশ। আর এসব দেশকে মারণাস্ত্র ও গোয়েন্দা তথ্য দিয়ে অনবরত সহযোগিতা করছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও কয়েকটি ইউরোপীয় দেশ।

সূত্র- মিডিলিস্ট আই।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ