Alexa উগ্রবাদ বিরোধী প্রচারণা তৃণমূলে পৌঁছাতে হবে: স্পিকার

উগ্রবাদ বিরোধী প্রচারণা তৃণমূলে পৌঁছাতে হবে: স্পিকার

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৯:০৫ ৯ ডিসেম্বর ২০১৯  

ছবি: বাসস

ছবি: বাসস

জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরিন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, উগ্রবাদ বিরোধী প্রচারণা তৃণমূল পর্যন্ত পৌঁছে দিতে হবে। আমরা কি ধরনের মূল্যবোধ দিয়ে সন্তানদের বড় করতে চাই এটা নিয়ে সবাইকে ভাবতে হবে। পরিবার থেকে সেই শিক্ষা দিতে হবে।

সোমবার রাজধানীতে ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টার বসুন্ধরায় আয়োজিত উগ্রবাদ বিরোধী জাতীয় সন্মেলন-২০১৯ এ তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে সকালে প্রধান অতিথি হিসেবে তিনি জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সূচনা করেন।

স্পিকার বলেন, উগ্রবাদ বৈশ্বিক সমস্যা। কোনো দেশের একার পক্ষে এ সমস্যা মোকাবিলা করা সম্ভব নয়। উগ্রবাদ বৈশ্বিক শান্তির অন্তরায়। আঞ্চলিক, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে কিভাবে উগ্রবাদকে মোকাবিলা করা যায় তা চিহ্নিত করতে হবে। কোনো মানুষ সন্ত্রাসী হয়ে জন্মায় না। কোন মানুষ কোন পরিস্থিতিতে উগ্রবাদে জড়ায় তা আগে চিহ্নিত করতে হবে।

তিনি বলেন, সিটিটিসি উগ্রবাদ দমনে সফট নীতি গ্রহণ করেছে, যা আমিও সমর্থন করি। সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে তরুণদের উগ্রবাদের বিরুদ্ধে উদ্বুদ্ধ করতে হবে। সমাজে রুল অফ ল প্রতিষ্ঠিত করতে পারলে, বিচারহীনতা দূর করতে পারলে উগ্রবাদ নির্মূল করা সম্ভব। আমরা তা পারবো। কেনো না আমরা বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার করেছি, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করেছি। তবে জনসচেতনতা ছাড়া এটা (উগ্রবাদ) নির্মূল করা সম্ভব নয়। এ জন্য তিনি সবাইকে সামাজিক আন্দোলন জোরদার করার আহ্বান জানান।

বাংলাদেশে নিযুক্ত আমেরিকার অ্যাম্বাসেডর আর্ল আর.মিলার বলেন, আমেরিকা সরকার ২০১৬ সাল থেকে এ পর্যন্ত বাংলাদেশকে উগ্রবাদ প্রতিরোধ সহায়তা হিসেবে প্রশিক্ষণ, বোম্ব ডিসপজাল, অনুসন্ধান, সাইবার ক্রাইম খাতে ৩৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার দিয়েছে।

তিনি বলেন, কেবল মাত্র সবার সমন্বিত উদ্যোগই পারে আগামী প্রজন্মের জন্য একটি শান্তিময় ভবিষ্যৎ গড়ে দিতে।

প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড.গহর রিজভী তার বক্তব্যে উগ্রবাদ দমনে সিটিটিসি ও আর্ন্তজাতিক সম্প্রদায়কে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, আন্তর্জাতিক সহযোগিতা না পেলে সহজে উগ্রবাদ দমন করা সম্ভব হতো না। তিনি তাদের সহায়তা অব্যহত রাখার আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- জাতিসংঘের (ইউএনআরসিও) আবাসিক সমন্বয়ক মিয়া সিপ্পো, বাংলাদেশে নিযুক্ত আমেরিকার অ্যাম্বেসেডর আর্ল আর.মিলার, প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড.গহর রিজভী, অতিরিক্ত কমিশনার ও সিটিটিসি প্রধান মনিরুল ইসলাম, পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা, বেসরকারি উন্নয় সহযোগী প্রতিষ্ঠানসহ সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি পেশার প্রতিনিধিরা।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসসি/এমআরকে