Alexa ইউপি ভবনে শতাধিক মৌচাক, মধুর টাকায় শীতবস্ত্র বিতরণ

ইউপি ভবনে শতাধিক মৌচাক, মধুর টাকায় শীতবস্ত্র বিতরণ

নওগাঁ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৮:৩৪ ২৭ জানুয়ারি ২০২০  

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

নওগাঁর মান্দা উপজেলায় ভারশোঁ ইউপি ভবনটি এখন মৌমাছির দখলে। ভবনটির কার্নিশে প্রায় শতাধিক চাক বেঁধেছে মৌমাছি। 

প্রকৃতিতে চলছে শীতকাল। এ সময় নওগাঁয় সরিষা চাষের মৌসুম চলছে। গাছে প্রায় তিন মাস ফুল থাকে। গাছে ফুল থাকা পর্যন্ত মৌমাছি মধু আহরণ করে। ইউপি ভবনের পাশেই প্রায় দুই কিলোমিটার বিস্তৃর্ণ এলাকাজুড়ে রয়েছে সরিষার ক্ষেত। আশপাশে কোনো বড় গাছ না থাকায় ইউপি ভবনের কার্নিশে নিরাপদে মৌমাছিরা চাক বেঁধেছে। এ পরিষদ ভবনের চারপাশের কার্নিশে শতাধিক মৌচাক রয়েছে। এসব মৌমাছি সব সময় উড়ে বেড়ালেও এখন পর্যন্ত কাউকে হুল ফোটায়নি।

স্থানীয় হাসান আলী, হারুন-অর-রশীদ ও আলম জানান, গত কয়েক বছর ধরে ওই ভবনের কার্নিশে চাক বাঁধে। আবার সরিষার আবাদ শেষ হয়ে গেলে তারা চলে যায়। তবে এবার ইউপি চেয়ারম্যানের উদ্যোগে মৌচাক থেকে আহরিত মধু বিক্রি করে বিভিন্ন এলাকার অসহায় ও শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করছেন।

ভারশোঁ ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান সুমন বলেন, তিন বছর ধরে অগ্রহায়ণ মাসে মৌমাছির দল ইউপি ভবনের কার্নিশে বাসা বাঁধে। আর আষাঢ় মাসের দিকে চলে যায়। এটা আল্লাহর অশেষ নিয়ামত। আগে কখনো মৌচাক বাসা বেঁধেছে কি-না তা আমার জানা নেই। সরিষা ক্ষেতের পাশে মৌবাক্সের মাধ্যমে ভ্রাম্যমাণ মৌচাষিরা কৃত্রিমভাবে যে মধু সংগ্রহ করছেন তার থেকে এ মধুর চাহিদা বেশি। প্রতি কেজি মধু ৩০০-৪০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এখন পর্যন্ত প্রায় ১৫ হাজার টাকার মতো মধু বিক্রি করা হয়েছে। মধু বিক্রির টাকা থেকে ইউপি’র উন্নয়নমূলক কাজ এবং শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হচ্ছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ