Alexa ‘আহ্নেরা আমার মাইয়া ড্যারে আননের ব্যবস্থা কইরা দ্যান’

‘আহ্নেরা আমার মাইয়া ড্যারে আননের ব্যবস্থা কইরা দ্যান’

জামালপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০২:৫৬ ১৬ নভেম্বর ২০১৯   আপডেট: ০৩:৩০ ১৬ নভেম্বর ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

মা-বাবার খোঁজে ৪২ বছর পর বাংলাদেশে আসা জার্মানি প্রবাসী সেলিনাকে নিজেদের মেয়ে দাবি করছেন জামালপুরের এক প্রৌঢ় দম্পতি।

১০ অক্টোবর ডেইলি বাংলাদেশে সংবাদ প্রকাশের পর ছবি দেখে সরিষাবাড়ী উপজেলার আওনা ইউপির দৌলতপুরের কোকিলা-আছিয়া দম্পতি জানান, সেলিনাই তাদের হারিয়ে যাওয়া মেয়ে সুফিয়া।

তারা জানান, তিন ছেলেমেয়ের মধ্যে সুফিয়া সবার ছোট। ১৯৭৬ সালে একদিন সুফিয়া সরিষাবাড়ী স্টেশন গণময়দানে জনসভায় হারিয়ে যায়। সেদিন অনেক খুঁজেও তাকে কোথাও পাওয়া যায়নি।

আছিয়া বেগম বলেন, এইডাই আমার মাইয়া সুফিয়া। আমার চেহারার সাথে একদম মিল আছে। আহ্নেরা আমার মাইয়া ড্যারে আননের ব্যবস্থা কইয়া দ্যান।

সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান নুরুজ্জামান বাবু তালুকদার জানান, আছিয়া-সেলিনার চেহারায় অনেক মিল রয়েছে। সেলিনাই সুফিয়া হতে পারেন। ৪২ বছর আগে সুফিয়ার হারিয়ে যাওয়ার কথা সবাই জানে।

স্থানীয় শামসুল আলম জানান, গণমাধ্যমে প্রকাশিত সেলিনার গল্পের সঙ্গে সুফিয়ার গল্পের অনেক মিল রয়েছে।

সাংবাদিক ফজলুর রহমান বলেন, সেলিনার সঙ্গে সেদিন গাইতিপাড়ার প্রতিটি বাড়িতে খুঁজেছি। কিন্তু তার বাবা-মায়ের সন্ধান পাইনি। তিনি আবারো দেশে আসবেন। তখন তাকে কোকিলা চাচার বাড়িতে নিয়ে যাবো।

জার্মান প্রবাসী সেলিনা বাংলাদেশে আসেন ৪ অক্টোবর। সেদিন এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, ১৯৭৬ সালে পাঁচ দিন বয়সে তাকে সড়কে ফেলে চলে যায় বাবা-মা। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে এতিমখানায় দেয়। বিদেশি এনজিও কর্মী জন ম্যাকডোনাল্ডের হাত ধরেই জার্মানিতে যান সেলিনা। সেই থেকে জার্মানিতে বড় হয়েছেন সেলিনা। ছয় বছর বয়সে নিজের আসল পরিচয় জানতে পারেন তিনি। ৭ অক্টোবর স্বামী সেয়ারারকে নিয়ে জামালপুরের গাইতিপাড়া গ্রামে বাবা-মায়ের খোঁজ করেন।

সেলিনা জানান, জন্মস্থানের প্রতি মায়ার কারণে তিনি বাংলাদেশে আসেন। এবার আক্ষেপ নিয়ে ফিরে গেলেও বাবা-মায়ের খোঁজে আবার আসবেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর