Alexa আলাদা বিছানায় ভালোই আছে রাবেয়া ও রুকাইয়া

আলাদা বিছানায় ভালোই আছে রাবেয়া ও রুকাইয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৩:১১ ৪ আগস্ট ২০১৯   আপডেট: ১৩:১৭ ৪ আগস্ট ২০১৯

অপারেশনের পর রাবেয়া ও রুকাইয়া। ছবি: সংগৃহীত

অপারেশনের পর রাবেয়া ও রুকাইয়া। ছবি: সংগৃহীত

টানা ৩০ ঘণ্টার অস্ত্রোপচারের পর জোড়া মাথার যমজ দুই বোন রাবেয়া ও রুকাইয়া সুস্থ এবং ভালো আছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত তাদের অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে।

রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) অস্ত্রোপচার করার পর আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর) এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, এ ধরনের অস্ত্রোপচার অত্যন্ত জটিল এবং সাফল্যের হার খুব বেশি নয়। এ ধরনের অস্ত্রোপচারের পরও সব সময় ঝুঁকি এবং বেশ জটিলতা থাকে। তবে অস্ত্রোপচারের পর রাবেয়া এবং রুকাইয়ার অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে। 

অপারেশনের আগে রাবেয়া-রুকাইয়া। ছবি: আইএসপিআর

এর আগে, বুধবার রাত ১টার দিকে বাচ্চা দুটির জোড়া লাগানো মাথা আলাদা করতে অপারেশন শুরু করেন সিএমএইচের চিকিৎসকরা। অপারেশনটি করতে ৩০ ঘণ্টা সময় লাগে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় হাঙ্গেরির বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে সিএমএইচের নিউরো অ্যানেসথেশিওলজিস্টদের তত্ত্বাবধানে নিউরো ও প্লাস্টিক সার্জনরা ঢাকা মেডিকেল কলেজ, শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউট, হার্ট ফাউন্ডেশন, নিউরো সায়েন্স ইনস্টিটিউট, সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল ও শিশু হাসপাতালের শতাধিক সার্জন ও অ্যানেসথেশিওলজিস্ট এই জটিল অস্ত্রোপচারে অংশগ্রহণ করেন।

২০১৭ সাল থেকেই প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় পাবনার চাটমোহরের রফিকুল ইসলাম ও তাসলিমা বেগম দম্পতির এই দুই শিশুসন্তান সামগ্রিক সহায়তা পেয়ে আসছিল। হাঙ্গেরি সরকারের মাধ্যমে 'অ্যাকশন ফর ডিফেন্সলেস পিপল' নামক সংগঠনও সক্রিয় সহায়তা প্রদান করেছে। 

রাবেয়া ও রুকাইয়ার খোঁজ খবর রাখেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

দাতব্য সংস্থা অ্যাকশন ফর ডিফেন্সলেস পিপল ফাউন্ডেশনের (এডিপিএফ) নিউরোসার্জন আন্দ্রেস কসোকে এএফপিকে দুই বোনের সর্বশেষ অবস্থা জানিয়ে বলেছেন, ‘চূড়ান্তভাবে আলাদা হওয়ার পর তারা স্থিতিশীল পর্যায়ে আছে। তারপরও আমাদের সতর্ক থাকতে হবে।’

শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের সমন্বয়ক অধ্যাপক সামন্ত লাল সেন পুরো বিষয়টির সমন্বয়কারীর দায়িত্ব পালন করেন। এর আগে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রাণবন্ত দুই বোনের দুই স্তরে 'এন্ডোভাস্কুলার সার্জারি' এবং হাঙ্গেরিতে ৪৮টি ছোট-বড় অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়।

বাবার কোলে রাবেয়া ও রুকাইয়া

আইএসপিআরের বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, এ ধরনের অস্ত্রোপচার বিশ্বে বিরল ঘটনা। উপমহাদেশে এরকম অস্ত্রোপচার এটিই প্রথম। এই অস্ত্রোপচার সিএমএইচে সম্পন্ন হওয়ায় বাংলাদেশের চিকিৎসা ব্যবস্থার সক্ষমতা আরো বৃদ্ধি পেল। এ ধরনের চিকিৎসা সহায়তা প্রকল্পের মাধ্যমে বাংলাদেশ ও হাঙ্গেরির জনগণের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরো জোরদার হবে। 

হাঙ্গেরিতে রাবেয়া ও রুকাইয়া

এর আগে গত জানুয়ারিতে তাদের হাঙ্গেরিতে পাঠানো হয়। সেখানে একবার অপারেশন করা হয়। ওই অপারেশনের মাধ্যমে তাদের মাথায় বিশেষ এক্সপান্ডার স্থাপন করা হয়। বুধবার অস্ত্রোপচারের আগে চিকিৎসকেরা বলেছিলেন, দুই বোনের বাঁচার সম্ভাবনা ফিফটি-ফিফটি।

হাঙ্গেরির দাতব্য সংস্থাটি ২০০২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। বিশ্বজুড়ে গরিব মানুষকে তারা সেবা দিয়ে থাকে। রাবেয়া-রুকাইয়াদের বাড়ি পাবনায়।

২০১৭ সালে তারা ওই সংস্থাটির সাহায্য নেয়। গত বছর বাংলাদেশে দুই বোনের আরো একটি অপারেশন করেছিল প্রতিষ্ঠানটি।

এডিপিএফ এশিয়া এবং আফ্রিকায় ৫০০টির মতো জটিল অস্ত্রোপচার করেছে। এর মধ্যে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গা শরণার্থীও রয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিআরএইচ