আম্ফানে উপকূলবাসীকে আশ্রয় ও খাদ্য সহায়তা দেয় কোস্ট গার্ড 

আম্ফানে উপকূলবাসীকে আশ্রয় ও খাদ্য সহায়তা দেয় কোস্ট গার্ড 

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:৩১ ২১ মে ২০২০   আপডেট: ১৬:৩৬ ২১ মে ২০২০

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ঘূর্ণিঝড় ‘আম্ফান’ মোকাবিলায় উপকূলীয় ঝুঁকিপূর্ণ বিভিন্ন এলাকা থেকে লোকজনকে বিভিন্ন সাইক্লোন সেন্টার ও কোস্ট গার্ড স্টেশনে সরিয়ে নিয়েছিল কোস্ট গার্ড সদস্যরা। এছাড়া তাদের মাঝে ইফতার ও খাবারের ব্যবস্থা করা হয়।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড সদর দফতরের মিডিয়া কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট বিএন এম হায়াত ইবনে সিদ্দিকী এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, ভোলা এবং চট্টগ্রামের উপকূলীয় দ্বীপসমূহ এবং সুন্দরবন তৎসংলগ্ন গাবুরা, দুবলার চর, ঢালচর, হাতিয়া, উড়িরচর, সারকাইত, সাংগুতে ২ হাজার ২০৫ জনকে কোস্ট গার্ড স্টেশনে আশ্রয় দেয়া হয়। পাশাপাশি তাদের ইফতার ও খাবারের ব্যবস্থা করা হয়।

এছাড়া লোকজনকে সাইক্লোন সেন্টারের আনা এবং তাদেরকে ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় বিভিন্ন নির্দেশনা প্রদানের মাধ্যমে সচেতন করা হয়েছিল। কোস্ট গার্ড সদস্যদের মাধ্যমে দুর্যোগকালীন ও ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের চিকিৎসা সেবার ব্যবস্থা করা হয়। উপকূলীয় অঞ্চলের মানুষের মাঝে কোস্ট গার্ডের সব ধরনের সেবা ও সহযোগিতা প্রতিনিয়ত খোলা ছিল।

এম হায়াত ইবনে সিদ্দিকী বলেন, ঘূর্ণিঝড় পরবর্তীতে কোস্ট গার্ডের ৬টি জাহাজ ও বোটসমূহ উদ্ধার কাজে নিয়োজিত আছে। আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে শুকনো খাবার ও বিভিন্ন খাদ্য সামগ্রী দেয়া হচ্ছে।

তিনি বলেন, উপকূলীয় অঞ্চলের মানুষের সহযোগিতার জন্য ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা ও বরিশালের বিভিন্ন অঞ্চলে কোস্ট গার্ড হেল্প সেন্টার বা হেল্প লাইনও চালু করা হয়েছিল। এর মাধ্যমে যেকোনো প্রয়োজনে উপকূলবাসীকে সহায়তা করা ও তাদের পাশে দাঁড়ানো সম্ভব হয়।
 

ডেইলি বাংলাদেশ/ইএ/জেডআর