‘আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে’

‘আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে’

মুকসুদপুর প্রতিনিধি    ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২১:১৩ ১৫ জুলাই ২০২০  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

গোপালগঞ্জ মুকসুদপুর উপজেলার গোবিন্দপুর ইউপি চেয়ারম্যান ওবাইদুল ইসলাম সংবাদ সম্মলেনে দাবি করেছেন, তার বিরুদ্ধে একটি মহল মিথ্যা, ভিত্তিহীন তথ্য দিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে। বুধবার সকালে ইউপি কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি একথা বলেন। ওই সময় তার পরিষদের অপর ৯ সদস্য উপস্থিত ছিলেন। 

তার পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ইউপি সদস্য আবুর হোসেন বাচ্চু মুন্সী। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, আমার বিরুদ্ধে আমাদের ইউপি সংরক্ষিত আসনের ৩ জন নারী সদস্য সম্মানী ভাতা না পাওয়ার বিষয়ে অভিযোগ দাখিল করেছেন। তাদের দাখিলকৃত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। 

তিনি আরো বলেন, ইউপির নিজস্ব আয় হতে আমাদের ইউপি অংশের সম্মানী ভাতা গ্রহণের বিধান আছে। কিন্তু অনুন্নত এলাকা বিধায় ইউপির নিজস্ব আয় খুবই কম। আমি নিজেসহ কোন সদস্যই ইউপির তহবিলের অংশ থেকে সন্মানী ভাতা নিতে পারি না। সেক্ষেত্রে তাদের সম্মানী ভাতা আত্মসাতের কোনো প্রশ্নই আসেনা। আমার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন।

উক্ত অভিযোগকারী ৩ জন নারী সদস্য তার কাছে নানাবিধ অনৈতিক সুবিধা দাবি করে, নিয়ম ও আইন বর্হিভুত নানাবিধ প্রকল্প ও টাকা পয়সা দাবি করে। তাদের সেই দাবি না মেটাতে পারায় ক্ষুব্ধ হয়ে তার বিরুদ্ধে সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন ও মনগড়া অভিযোগ দাখিল করেছে। সেই সঙ্গে তারা গত ৬ মাস ধরে ইউপতে কোনো মিটিংএ আসেন না। অপরদিকে তাদের এই অভিযোগটি বিভিন্ন দফতরে দাখিলসহ সামাজিক ও অন্যান্য গণমাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়ে আমার সামাজিক রাজনৈতিক সুনাম খুন্ন করেছে। ইউপি সদস্য কামরুল ইসলাম, ফজর আলী, মিরাজ মুন্সী, আবদুল মান্নান শেখ ও জিন্নাত আলী মুন্সী বক্তব্য রাখেন। 

উল্লেখ্য, গোবিন্দপুর ইউপির রিনা পারভীন, বিলকিস বেগম ও নাজমা বেগম গত ৭ জুন গোপালগঞ্জ ডিসি ও মুকসুদপুর ইউএনও’র কাছে ত্রাণ বিতরনে অনিয়ম এবং ইউপি সদস্যদের সম্মানীর টাকা আত্মসাৎ করেছে মর্মে একটি অভিযোগ দেন, তার ভিত্তিতে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সাংবাদ প্রচারিত হয়। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএইচ