আমার ছেলে গান গাইতে পারে, যত্ন নিলে ভালো হতো: অপু’র বাবা

আমার ছেলে গান গাইতে পারে, যত্ন নিলে ভালো হতো: অপু’র বাবা

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:২৪ ৪ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১৬:২৫ ৪ আগস্ট ২০২০

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

জনপ্রিয় ভিডিও অ্যাপ টিকটকের বিতর্কিত মুখ ইয়াছিন আরাফাত ওরফে অপু। তার বাবা শহীদুল ইসলাম বলেছেন, আমার ছেলে প্রতিভাবান, মেধাবী। সে গান গাইতে পারে। ওরে যত্ন নিলে ভালো করতো।

মঙ্গলবার রাজধানীর উত্তরা পূর্ব থানায় ছেলের খোঁজ নিতে এসেছিলেন শহীদুল ইসলাম। এ সময় সাংবাদিকদের উদ্দেশে এ কথা বলেন তিনি।

অপুর বাবা আরো বলেন, ওসি সাহেবের সঙ্গে আমার আলাপ হইছে। তারা ভালো রিপোর্ট দিছে। ছেলেরে আসলে ঠিকমতো দেখাশোনা করি নাই। এজন্য এ রকম হইছে। এখন আমি জজকোর্টে যাচ্ছি। ওর জামিন হলে ওর প্রতি খেয়াল নিবো।

তিনি জানান, অপু যে ঢাকায় ছিল সেটা তিনি জানতেন না। কারণ অপু সোনাইমুড়িতে নানার বাড়ি থাকতো। অপুর মায়ের সাথে তার তালাক হয়ে গেছে ১৩ বছর আগে। সে ঘরে অপু ও অন্তর নামে দুই সন্তান রয়েছে। 

পরে অপুর শহীদুল ইসলামকে তালাক দিলে তিনি ফের বিয়ে করেন।  তবে সোনাইমুড়ির সোনাপুরে নানাবাড়িতে অপু ও অন্তরের জন্য খরচ পাঠাতেন শহীদুল ইসলাম। পরের ঘরেও শহীদুল ইসলামের দুই সন্তান রয়েছে।

অপু ঢাকার দক্ষিণখানে থাকে জানেন না কেন, জানতে চাইলে শহীদুল ইসলাম বলেন, আমি আসলেই জানতাম না। আমি তো থাকি মাইজদিতে। সোনাইমুড়ি গিয়ে তাদের দেখে আসি। ঈদের আগের দিন গেছি। ওরা বলল অপু ঢাকা চলে গেছে। আমাকে ওর নানাবাড়ির মানুষেরা বিস্তারিত জানায়নি। 

তিনি আরো বলেন, সোমবার আমি শুনলাম অপুকে পুলিশ ধরছে, আমি বাস ধরেই চলে এসেছি ঢাকায়। এখন জজ কোর্টে যাবো।

অপু ‘বখে গেল’ কীভাবে- এই প্রশ্নের উত্তরে শহীদুল ইসলাম বলেন, দেখেন ওর নানাবাড়ির লোকেরা তার বাপের সম্পর্কে এমন কথা বলছে যে, সে আমাকে সব প্রশ্নের উত্তর দিতো না। তাই আমি জানতেই পারি নাই এতো কিছু ঘটে গেছে। 

সোশ্যাল মিডিয়া লাইকিতে রঙিন চুলে ছোট ভিডিও করে বেশ পরিচিতি লাভ করেন টিকটকের জনপ্রিয় মুখ ‘অপু ভাই’। এই মাধ্যমে তাকে অনুসরণ করেন প্রায় ১০ লাখ অনুসারী।

এর আগে রোববার উত্তরা পূর্ব থানাধীন ৬ নম্বর সেক্টরের আলাউল এভিনিউ এলাকায় সড়কে এক ব্যক্তিকে মারধর করেন অপু। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ওই ব্যক্তি থানায় মামলা করেন। 

ওই মামলায় সোমবার সন্ধ্যায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। অপুকে গ্রেফতারের খবর ছড়িয়ে পড়ার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারীরা ব্যাপক সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন।

চীনা অ্যাপ টিকটকে নানা ধরনের বিকৃত ভিডিও তৈরি করে ব্যাপক আলোচনায় আসে অপু। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নতুন ‘গ্যাং কালচার’ তৈরি অভিযোগ রয়েছে অপু ও মামুনসহ একাধিক টিকটকারের বিরুদ্ধে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর