Alexa আন্দোলনের জেরে পতনের দ্বারপ্রান্তে হংকংয়ের আইনি শাসন

আন্দোলনের জেরে পতনের দ্বারপ্রান্তে হংকংয়ের আইনি শাসন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২২:০৫ ১২ নভেম্বর ২০১৯  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

দীর্ঘ পাঁচ মাসেরও বেশি সময় ধরে চলমান সহিংস আন্দোলনের জেরে হংকংয়ের আইনি শাসন ব্যবস্থা ‘পুরোপুরি পতনের দ্বরপ্রান্তে’ এসে পৌছেছে বলে সতর্ক করে দিয়েছে হংকং পুলিশ।

সোমবার বিক্ষোভ ঠেকাতে এক বিক্ষোভকারীর পায়ে গুলি ছোঁড়ার একদিন পর পুলিশ সতর্কবার্তা জানালো। 

বিক্ষোভকারীর ওপর গুলি ছোঁড়ার পর সরকার-বিরোধী বিক্ষোভকারীরা বেইজিংপন্থি এক সমর্থকের গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয়।

মঙ্গলবারও বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে কেন্দ্রীয় বাণিজ্যিক এলাকাসহ দুটো বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে। এদিন ‘লাঞ্চ ব্রেকের’ সময় প্রায় এক হাজার বিক্ষোভকারী হঠাৎ করেই রাস্তায় নেমে নগরীর সবচেয়ে উঁচু ভবনগুলোর নিচের সড়ক অবরোধ করে।

ওই বিক্ষোভকারীদের বেশিভাগই কর্মস্থলের পোশাকে এবং মুখোশ পরে ছিল। তাদেরকে ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ টিয়ার গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করে। এ সময় এক ডজনের বেশি বিক্ষোভকারীকে আটক করা হয়।

বিক্ষোভকারীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে পরিবেশ শান্ত হলে পুলিশের মুখপাত্র কং উইং চেউং এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে গত দুদিনের সহিংসতার কথা উল্লেখ করে সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমাদের সমাজকে পুরোপুরি পতনের দিকে ঠেলে দেওয়া হয়েছে।’

‘মুখোশধারী বিক্ষোভকারীরা উন্মাদের মত মেট্রোরেলের লাইনে সাইকেল, ধাতব টুকরা এবং অন্যান্য আবর্জনা ফেলছে এবং বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন করে দেয়ার চেষ্টা করছে। তাদের এ কাণ্ডে যোগাযোগ ব্যবস্থা প্রায় অচল হয়ে পড়েছে।’

‘মুখোশধারী বিক্ষোভকারীরা তাদের দাবি আদায়ের আশা নিয়ে বেপরোয়াভাবে সহিংস হয়ে উঠছে। তারা হংকংয়ে আইনের শাসনকে পুরোপুরি পতনের দ্বারপ্রান্তে ঠেলে দিয়েছে।’

সোমবার বেইজিংপন্থি অগ্নিদগ্ধ ব্যক্তির অবস্থা আশঙ্কাজনক জানিয়ে মুখপাত্র চেউং আরো বলেন, কে বা কারা তার গায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে তা খুঁজে বের করা হবে।

একই সংবাদ ব্রিফ্রিংয়ে আরেক পুলিশ কর্মকর্তা সোমবার বিক্ষোভকারীদের ওপর পুলিশের গুলিবর্ষণের পক্ষও সমর্থন করেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের সহকর্মীরা যে কারো না কারো কাছ থেকে হুমকির মুখে পড়ছে তাই নয়, বরং এক দল মানুষ সংগঠিতভাবে পরিকল্পনা করে আমাদের বন্দুক চুরির চেষ্টা চালাচ্ছে- এমনটিই আমরা দেখতে পাচ্ছি।’

‘এরকম পরিস্থিতিতে আমরা মনে করি আমাদের পুলিশ বাহিনী নিজেদের পাশাপাশি তাদের আশোপাশের মানুষজনের সুরক্ষায় গাইডলাইন অনুযায়ীই কাজ করছে।’

চীনের মূলভূখণ্ডে বন্দি প্রত্যর্পণ নিয়ে একটি প্রস্তাবিত বিল বাতিলের দাবিতে গত জুন মাস থেকে হংকংয়ে এ আন্দোলন-বিক্ষোভ শুরু হয়।

টানা বিক্ষোভের মুখে ওই বিল প্রথমে ‘মৃত’ এবং পরে বাতিল ঘোষণা করা হলেও আন্দোলন থামেনি। বরং গণতন্ত্রপন্থি আন্দোলনকারীরা আত্মনিয়ন্ত্রণাধিকারের আরো অনেক দাবি নিয়ে বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/মাহাদী