Alexa আনুগত্যহীনতার অভিযোগে রাজকীয় সঙ্গীর মর্যাদা কেড়ে নিলেন থাই রাজা

আনুগত্যহীনতার অভিযোগে রাজকীয় সঙ্গীর মর্যাদা কেড়ে নিলেন থাই রাজা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৩:৫৬ ২২ অক্টোবর ২০১৯  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

রাজতন্ত্রের প্রতি আনুগত্যহীনতা ও অসদাচরনের অভিযোগে নিজের রাজকীয় সঙ্গীর মর্যাদা কেড়ে নিয়েছেন থাইল্যান্ডের রাজা ভাজিরালংকর্ণ। শুধু রাজকীয় সঙ্গীর মর্যাদাই নয়, সঙ্গে তার সামরিক পদ ও মর্যাদাও কেড়ে নেয়া হয়েছে।

এ সম্পর্কে এক আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে জানানো হয় যে, থাই রাজকীয় সঙ্গী সিনেনাত ওংভাজিরাপাকদি উচ্চাভিলাষী হয়ে উঠেছিলেন এবং নিজেকে রানীর সমকক্ষ হিসেবে ভাবতে শুরু করেছিলেন।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, এই রাজকীয় সঙ্গীর আচরণ অসম্মানজনক হিসেবে বিবেচনা করা হয়েছে।
 
থাই রাজা ভাজিরালংকর্ণ চতুর্থ রানী হিসেবে সুথিদাকে বিয়ের দু'মাস পর গত ২৮ জুলাই সিনেনাতকে নিয়োগ দেয়া হয়। তবে নিয়োগের মাত্র তিন মাসের মাথায় তার বিরুদ্ধে এই ব্যবস্থা নেয়া হলো।

৩৪ বছর বয়সী সিনেনাত ছিলেন একজন মেজর জেনারেল, প্রশিক্ষিত পাইলট, নার্স এবং দেহরক্ষী। বিগত শতাব্দীর মধ্যে তিনিই ছিলেন রাজকীয় সঙ্গীর খেতাবপ্রাপ্ত একমাত্র নারী।

অপরদিকে ৪১ বছর বয়সী রানী সুথিদা রাজা ভাজিরালংকর্ণের দীর্ঘদিনের সহযোগী ছিলেন এবং বহু বছর ধরে তাকে রাজার সঙ্গে জনসম্মুখেও দেখা গেছে।

সোমবার এক রাজকীয় গ্যাজেট জারি করে সিনেনাতের ওপর থেকে রাজকীয় সঙ্গীর পদবী তুলে নেয়া হয়। রানী সুথিদাকে বিয়ের পরেও রাজকীয় সব অনুষ্ঠানে সিনেনাতকে অতিথি হিসেবে থাকতে দেখা গেছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/মাহাদী