Alexa ‘অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে গেছি’

‘অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে গেছি’

এম. এস. রুকন ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০২:১৭ ২১ আগস্ট ২০১৯   আপডেট: ০২:৪৫ ২১ আগস্ট ২০১৯

মাহতাব উদ্দিন। ফাইল ছবি

মাহতাব উদ্দিন। ফাইল ছবি

২০০৪ সালের ২১ আগস্ট। ঢাকায় বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে ইতিহাসের ভয়াবহ গ্রেনেড হামলা চালানো হয়। সে সময় অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে যাওয়া আওয়ামী লীগের নিবেদিত প্রাণ গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান মাহতাব উদ্দিন। সমসাময়িক বিষয়ে তিনি মুখোমুখি হয়েছিলেন ডেইলি বাংলাদেশের। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন এম. এস. রুকন।

ডেইলি বাংলাদেশ: কেমন আছেন?

মাহতাব উদ্দিন: মহান সৃষ্টিকর্তার অশেষ রহমতে ভালো আছি।

বর্তমান ব্যস্ততা কী নিয়ে কাটছে?

মাহতাব উদ্দিন: আগস্ট মানে শোকের মাস। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী এবং নেত্রীবৃন্দের জন্য এই মাসে স্বাভাবিকভাবেই শোক দিবসের নানা কর্মসূচি বাস্তবয়নে কাজের ব্যস্ততা বেড়ে যায়। আমারও এর ব্যতিক্রম নয়। বর্তমানে শোক দিবসে বিভিন্ন কর্মশালা বাস্তবয়নে ব্যস্ত আছি।

২১ আগস্ট সম্পর্কে কিছু বলেন?

মাহতাব উদ্দিন: ভয়াল ২১ আগস্ট এর কথা মনে হলে অশ্রু ধরে রাখতে পারি না। জানি না সেদিন কার দোয়ায় আমার ওপর আল্লাহতাআলার করুণা নসিব হয়েছিল! অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে গেছি। আমার অবস্থান ছিল যে জায়গাটিতে তার পাশে পড়েছিল। কিন্তু সেটি বিস্ফোরিত হয়নি।

আপনি কি মনে করেন গ্রেনেড হামলা পূর্বপরিকল্পিত?

মাহতাব উদ্দিন: অবশ্যই! একশ ভাগ সত্য। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলাটি পূর্বপরিকল্পিতভাবে তৎকালীন সরকারের মদতে করা হয়েছিল। যদি তাই না হতো, তাহলে প্রশাসন নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করতে পারত না। আমি মনেপ্রাণে বিশ্বাস করি ঘাতকদের সেদিন ইতিহাসের নৃশংসতম রক্তাক্ত হামলাটি চালানোর উদ্দেশ্যই ছিল মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তিকে এবং বাংলার মাটি থেকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে নেতৃত্বশূন্য করা।

১৫ আগস্ট এবং ২১ আগস্টে কোনো যোগসূত্র আছে মনে করেন?

মাহতাব উদ্দিন: অবশ্যই। ১৯৭৫ সালে ১৫ আগস্টের কালো রাতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধ্বংস করার ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা করা হয়। সেদিন বিদেশে থাকায় বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা বর্তমান প্রধানমত্রী শেখ হাসিনা ও শেখ রেহেনা প্রাণে বেঁচে যান। বঙ্গবন্ধুর বংশকে নির্বংশ করার জন্যই শেখ হাসিনার ওপর ২১ বার হামলা চালানো হয়। ১৫ আগস্টের ঘাতকরাই পরবর্তীতে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা চালায়।

গ্রেনেড হামলা মামলার বিচার কাজ সম্পর্কে বলেন?

মাহতাব উদ্দিন: মরণের ভয়কে জয় করে জননেত্রী শেখ হাসিনা যুদ্ধাপরাধীদের বিচার কাজ সম্পন্ন করেছেন। পিলখানা হত্যাকাণ্ডের বিচার সম্পন্ন করেছেন। অতীতের বিএনপি-জামাত সরকার বার বার গ্রেনেড হামলার বিচার কাজকে বিলম্বিত করেছে। বর্তমান সরকার ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার বিচার কাজও অনেক দূর এগিয়ে নিয়েছেন। আমি বিশ্বাস করি- এ বিচার কাজও এই সরকারের সময়কালেই সম্পন্ন হবে।

জাতির কাছে আপনার প্রত্যাশা কী?

মাহতাব উদ্দিন: বাঙালি জাতি বিশেষ করে তরুণ যুবসমাজের কাছে আমার প্রত্যাশা, মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস সম্পর্কে জানবে এবং উন্নয়নের রোল মডেল বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নযাত্রাকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবে।

ডেইলি বাংলাদেশ: আপনাকে ধন্যবাদ।

মাহতাব উদ্দিন: ডেইলি বাংলাদেশকেও ধন্যবাদ।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসআই/আরএইচ