Alexa আইপিএল খেলতে চান স্প্রিন্টার ব্লেক!

আইপিএল খেলতে চান স্প্রিন্টার ব্লেক!

স্পোর্টস ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৭:৩৭ ৬ ডিসেম্বর ২০১৯   আপডেট: ১৮:২২ ৬ ডিসেম্বর ২০১৯

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

ট্র্যাক এন্ড ফিল্ডের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় জ্যামাইকার ইয়োহান ব্লেক। স্বদেশী উসাইন বোল্টের পর ব্লেকই বিশ্বের দ্বিতীয় দ্রুততম গতিমানব। এবার তিনি ক্রিকেটার হওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন। বলেছেন, টোকিও অলিম্পিকের আগেই ক্রিকেটটা খেলতে চান। তাও আইপিএলে!

বিশ্বের সেরা সেরা সব খেলোয়াড় অংশগ্রহণ করে থাকে আইপিএলে। অনেকে স্কোয়াডে সুযোগ পেলেও নামার সুযোগ পায় না। এমন একটি টুর্নামেন্টে ব্লেকের খেলতে চাওয়ায় অবাক হয়েছেন অনেকেই। 

তবে ব্লেকের দেশ জ্যামাইকায় অন্যতম জনপ্রিয় খেলা ক্রিকেট। স্প্রিন্টে তো নামজাদা অনেকেই আছেন ক্যারিবীয় অঞ্চলের। নিজেদের ইভেন্টের অনেক তারকাই ট্র্যাকের বাইরে নিজের আগ্রহের কথা জানিয়েছেন। এই যেমন উসাইন বোল্ট হতে চেয়েছিলেন ফুটবলার। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে খেলতে মরিয়া ছিলেন তিনি। তাই এমন ইচ্ছা পোষণ করা জ্যামাইকার অ্যাথলেটদের স্বাভাবিক একটি ঘটনাই।

মূলত মুম্বাইয়ে একটি ইভেন্টের সময় নিজের ক্রিকেট প্রেমের কথা জানিয়েছেন ব্লেক। রোড সেফটি টি-টুয়েন্টি ওয়ার্ল্ড সিরিজের প্রমোশনের জন্য ভারতে এসেছেন তিনি। শচীন টেন্ডুলকার, ব্রায়ান লারাদের মতো ক্রিকেটাররা খেলবেন ওই টুর্নামেন্টে। সেখানেই জানান, ছোট বেলা থেকেই পেশাদার ক্রিকেট খেলার স্বপ্ন দেখেন তিনি।

আইপিএলের দুটি ফ্র্যাঞ্চাইজির হয়ে খেলার আগ্রহের কথা জানান ব্লেক। বিরাট কোহলির রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু (আরসিবি) ও শাহরুখ খানের মালিকাধীন কলকাতা নাইট রাইডার্সের (কেকেআর) হয়ে খেলতে চান।

ব্লেক বলেন, ‘ট্র্যাকে আমার আরো দুই বছর বাকি আছে। তাই একটু ক্রিকেট খেলতে চাই। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে খেলার ইচ্ছা আমার নেই। ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটে অংশ নিতে চাই, এমনকি ভারতের একটি ফ্র্যাঞ্চাইজির মালিকও হতে চাই। সবচেয়ে বড় কথা, কলকাতা নাইট রাইডার্স বা রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর যেকোনো একটির হয়ে খেলতে চাই।’

২০১১ সালের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে ১০০ মিটারে সোনা জেতেন ব্লেক। সেটাই ছিল সবচেয়ে কমবয়সী কোনো স্প্রিন্টারের সোনা জয়ের রেকর্ড। ২০১২ অলিম্পিকেও পদক জেতেন তিনি। লন্ডনের ওই আসরে ১০০ ও ২০০ মিটারে ব্রোঞ্জ জিতেছেন।

ব্লেকের ইচ্ছা পূরণ হবে কিনা তা সময়ই বলে দেবে। তবে বাস্তবতা বিচারে এই সম্ভাবনা অত্যন্ত কম। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এএল