দূরবীনপ্রথম প্রহর

অস্ত্র জমা দিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরলেন পরিচিত চাকমা

নিজস্ব প্রতিবেদকডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম
ফাইল ছবি

পাহাড়িদের সংগঠন ইউপিডিএফ (মূল) এর শীর্ষ সন্ত্রাসী আনন্দ চাকমা ওরফে পরিচিত চাকমা অস্ত্র সমর্পণ করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসেছেন। বৃহস্পতিবার খাগড়াছড়িতে সেনাবাহিনীর কাছে একটি বিদেশি পিস্তল ও তিন রাউন্ড গুলিসহ আত্মসমর্পণ করেন তিনি।

আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর সহকারি তথ্য কর্মকর্তা ওয়াজির উদ্দিন আহমেদ এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানান, অস্ত্র সমর্পণ করার পর দুপুর ২টায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে পরিচিত চাকমা সন্ত্রাসী জীবন ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার কথা বলেন।

সংবাদ সম্মেলনে পরিচিত চাকমা বলেন, পাহাড়ে মা বোনেরাও ইউপিডিএফের পাশবিকতায় আজ বিপর্যস্ত। সম্প্রতি ইউপিডিএফ এর নির্যাতনের শিকার রাঙ্গামাটির মিতালী চাকমার প্রসঙ্গ টেনি তিনি বলেন, আমারও ডিগ্রী পড়ুয়া একটি মেয়ে আছে। তার ভবিষ্যৎ নিয়ে আমি শঙ্কিত। এসব কারণে তিনি সন্ত্রাসের জীবন ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসেছেন। তার মত অনেকেই স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে চাইলেও প্রাণের ভয়ে ফিরে আসতে পারেন না। সরকার ও নিরাপত্তা বাহিনীর কাছে তিনি নিজের ও পরিবারের নিরাপত্তা চান। বাকি জীবন একজন আদর্শ নাগরিক হিসেবে অতিবাহিত করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

জানা যায়, আনন্দ চাকমা ওরফে পরিচিত চাকমা ৩৬ বছর ধরে শান্তি বাহিনী ও জনসংহতি সমিতির তথাকথিত আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। গত ৪ বছর ধরে তিনি ইউপিডিএফ এর নানিয়ারচর সার্কেলের বিচার ও সাংগঠনিক পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। সংগঠন ছেড়ে আসার কারণ হিসেবে পরিচিত চাকমা ইউপিডিএফ এর আদর্শ ও নীতিহীনতাকে দায়ী করেন। তার মতে, ইউপিডিএফ একটি আদর্শ ও নীতিহীন সন্ত্রাসী সংগঠন। গুম, খুন, হত্যা ও অপহরণই আজকের ইউপিডিএফ এর আসল কাজ। ইউপিডিএফ প্রধানসহ সব নেতাকর্মীরা রক্তের নেশায় ও ক্ষমতার মোহে পড়ে আছে বলে তিনি মনে করেন।

এছাড়াও তিনি বলেন, ইউপিডিএফ এর কাছে স্বজাতীয় কোনো ভাইবোনই নিরাপদ নয়। তাদের সঙ্গে মতের অমিল থাকার কারণে বর্মা ও শক্তিমান চাকমাসহ অনেককেই ইউপিডিএফ সন্ত্রাসীরা নৃশংস ভাবে খুন করেছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসবি/এস

daily-bd-hrch_cat_news-1-10