অসহায় বৃদ্ধাকে বাড়ি তৈরি করে দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন এসপি

অসহায় বৃদ্ধাকে বাড়ি তৈরি করে দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন এসপি

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২০:৫৬ ১ জুলাই ২০২০   আপডেট: ১৬:০০ ২ জুলাই ২০২০

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

অসহায় এক বৃদ্ধ নারীকে ব্যক্তিগত উদ্যোগে বাড়ি তৈরি করে দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন কুষ্টিয়ার এসপি এস এম তানভির আরাফাত।

বুধবার সকালে এসপি এসএম তানভীর আরাফাত নিজে গিয়ে বৃদ্ধার কাছে ঘরটি হস্তান্তর করেন। ঘর পেয়ে খুশি হয়ে বৃদ্ধা এসপিকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।

এ সময় পুলিশ কর্মকর্তা, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

কুষ্টিয়া শহর লাগোয়া হাটশ হরিপুর ইউপির শালদহ গ্রামের বাসিন্দা আমিরুন নেসা। বয়স ৮০ ছুঁই ছুঁই। এক নাতী ছাড়া তার আর কেউ নেই। সম্বল বলতে স্বামীর ভিটায় ভাঙাচোরা একটি দোচালা ঘর। 

স্বামী সন্তান না থাকায় পালিত নাতির সঙ্গে বাস করতেন। সাম্প্রতিক প্রলঙ্করী ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের তাণ্ডবে তার সেই ঘরটি ভেঙে পড়ে। মাথা গোঁজার একমাত্র ঠাঁই হারিয়ে তিনি চিন্তায় পড়ে যান।  

পরে ফেসবুকে এ ব্যাপারে একটি পোস্ট দেখতে পান কুষ্টিয়ার এসপি এস এম তানভির আরাফাত। খবরটি জানার পর পরই তার বাড়িতে ছুটে যান এসপি। অসহায় নারীকে খাদ্য সহায়তা দেয়াসহ নতুন ঘর তৈরির প্রতিশ্রুতি দেন কুষ্টিয়ার এসপি।    

প্রতিশ্রুতি হিসেবে বুধবার ঘরটি বৃদ্ধার কাছে হস্তান্তর করেন। থাকার একটি রুমের পাশাপাশি একটি বারান্দা ও সঙ্গে একটি টয়লেটও নির্মাণ করা হয়েছে। পাশাপাশি থাকার জন্য একটি খাট, ফ্যান ও আলনাসহ অন্যান্য ফার্নিচার উপহার দিয়েছেন এসপি।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন অ্যাডিশনাল এসপি মোস্তাফিজুর রহমান, আজাদ রহমান, আতিকুর রহমান আতিক, ইউপি চেয়ারম্যান সম্পা মাহমুহ, হরিপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মিলন মন্ডল, কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আনিসুজ্জামান ডাবলুসহ গণমাধ্যম কর্মীরা।

এসপি তানভির আরাফাত জানান, ভালো কাজ করার মধ্যে যে কি আনন্দ তা বলে বোঝানো যাবে না। এ বৃদ্ধার কষ্টের কথা জেনে আমি তার বাড়িতে এসেছিলাম। তার কষ্ট দেখে খুবই খারাপ লেগেছিল। রমজান মাস হওয়ায় আমার স্ত্রী জাকাতের টাকা দিয়ে বৃদ্ধার ঘরটি নির্মাণের কথা বললে আমি পদক্ষেপ গ্রহণ করি। জাকাতের অর্থ দিয়ে ঘরটি নির্মাণ করে দিয়েছি। তিনি বাকি জীবন যাতে ভালভাবে থাকতে পারেন। পাশাপাশি তার ফার্নিচারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। 

নতুন ঘরটি তার কাছে হস্তান্তর করতে পেরে নিজেকে সব থেকে সৌভগ্যবান মনে হচ্ছে। পুলিশের একজন সদস্য হিসেবে আমি গর্বিত। 

এর আগে এসপি ফিতা কেটে ঘরটি উদ্বোধন করেন। চাবি তুলে দেন বৃদ্ধার হাতে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে/আরআর